এক অভিনব উদ্যোগ নিল বিজেপি, এবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী রাজ্যের সকল মানুষের অভাব-অসুবিধার অভিযোগ সরাসরি ফোনে শুনবেন।

এ ব্যাপারে কোন দ্বিমত হবে না যে বর্তমান সরকার অর্থাৎ বিজেপি সরকার প্রতিটি জনসাধারণের মনে একটি ঘর করে নিয়েছে। আর যখন থেকে মধ্যপ্রদেশে হওয়া বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপি কে হারের সম্মুখীন হতে হয়েছে তখন থেকেই বিজেপির কার্যকর্তারা আগের তুলনায় এখন অনেক বেশি কার্যকরী হিসাবে জনতার কাছে নিজেদের তুলে ধরছেন, এখন বিজেপির সকল কার্যকর্তা সহ নেতা মন্ত্রীরা নিজেদের প্রচার কাজে জোর কদমে লেগে পড়েছেন। লোকসভা নির্বাচনের আগে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি কে সামনে রেখে প্রচারে ঝড় তুলতে চাইছে বিজেপি তাই এবার নতুন উদ্যোগ নিয়েছে গেরুয়া শিবির। তাই রাজ্যের 42 টি লোকসভা কেন্দ্র ও রাজ্যের সদর দপ্তরে রাখা হচ্ছে বিশেষ কমপ্লেন বক্স।

আর এই কমপ্লেন বক্স এর মধ্যে সাধারণ মানুষ তাদের অসুবিধা দাবি-দাওয়া কথা জানাতে পারবেন। তাছাড়া বলা হচ্ছে পাশাপাশি ভয়েস কলের মাধ্যমে সরাসরি প্রধানমন্ত্রীকে সংশ্লিষ্ট এলাকার সমস্যার কথা জানাতে পারবে রাজ্য বাসিরা। এছাড়া এ ব্যবস্থাকে আরও উন্নত করার জন্য বিশেষ মোবাইল ভ্যান ও লোকসভা কেন্দ্র গুলিতে ঘোরাঘুরি করবে বলে সূত্রের খবর। তবে আপনাদের বলে দেওয়া যাক এই মোবাইল ভ্যান কি? কি থাকবে এই বিশেষ মোবাইল ভ্যানের মধ্যে? এই বিশেষ মোবাইল ভ্যানে থাকবে একটি জয়েন স্কিন। গত চার বছরে কেন্দ্রীয় সরকার কি কি প্রকল্প চালু করেছেন এবং সেই প্রকল্পের দরুন মানুষ কি কি সুবিধা পেয়েছেন, মোট কতজন মানুষ এর সুবিধা পেয়েছেন, তার বিস্তারিত তথ্য ভিডিও আকারে স্কিনের মধ্যে দেখানো হবে।

এখানে দেখানো হবে প্রধানমন্ত্রী উজ্জ্বলা যোজনা থেকে আবাস যোজনা সাথে কেন্দ্রীয় সরকারের সব প্রকল্পের তথ্য, তুলে ধরা হবে সাধারণ মানুষের কাছে। এছাড়া এই ভ্যান এর মাধ্যমে সরাসরি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে সে এলাকার বিভিন্ন সমস্যার অভিযোগ জানাতে পারবেন সাধারণ জনতা। এছাড়াও লিখিতভাবে অভিযোগ জানানো যাবে এই ভ্যানে। যার দরুন এই মোবাইল ভ্যানে রাখা হয়েছে একটি কমপ্লেন সংক্রান্ত বক্স। তাছাড়া এই মোবাইল ভ্যান এর মধ্যে থাকবে সরাসরি প্রধানমন্ত্রীকে ভয়েস কল করার সুবিধা যার মাধ্যমে এলাকাবাসীরা তাদের অভিযোগ জানাতে পারবেন সরাসরি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে। বিজেপির সাধারণ সম্পাদক প্রতাপ বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন রাজ্যের প্রায় 42 টি লোকসভা কেন্দ্রে মোবাইল ভ্যান বের করা হবে।

আর এর দরুন যে সমস্ত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থার প্রয়োজন সেইগুলি ব্যবস্থা করতে নির্দেশ দিয়েছে কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। এই বিশেষ উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে এই কারণেই যার দরুন সাধারণ মানুষের অভাব অভিযোগ সরাসরি জানতে পারা যায়।বিজেপির তরফ থেকে নেওয়া এই উদ্যোগটি আপনাদের কেমন লেগেছে তা আমাদের অবশ্যই জানাবেন। আরো এরকম নতুন নতুন খবর আপডেট পেতে চোখ রাখুন আমাদের ওয়েব পোর্টালটিতে।