বড় পদক্ষেপ! অমিক্রণ আতঙ্কে কারা আসবেন স্কুল, কারা আসবেন না, নির্দেশিকা জারি রাজ্য সরকারের

করোনার নতুন ভেরিয়েন্ট ওমিক্রণ ইতিমধ্যে মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে ভারতবর্ষে। প্রায় ৫০ জন মহামারীর কবলে আক্রান্ত হয়েছেন। কিন্তু এমতঅবস্থায় স্কুল-কলেজ পুরোপুরি বন্ধ হবে না বলে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। স্কুল কলেজ বন্ধ না হলেও স্কুল কলেজ থেকে সংক্রমণ ছড়াচ্ছে, তা স্পষ্ট করে দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

এই পরিস্থিতিতে আপাতত স্কুলের জন্য একটি নির্দেশিকা জারি করলেন স্কুল শিক্ষা দপ্তর। এ নির্দেশনা অনুযায়ী, কোন শিক্ষক শিক্ষিকা অশিক্ষক কর্মীদের যদি সর্দি কাশি হয় তাহলে তাঁরা স্কুলে আসতে পারবেন না। কোনরকম শরীর খারাপের লক্ষণ থাকলে শিক্ষক-শিক্ষিকা অথবা অশিক্ষক কর্মীরা সঙ্গে সঙ্গে করোনা পরীক্ষা করিয়ে নেবেন। ইতিমধ্যেই প্রত্যেক জেলা বিদ্যালয় পরিদর্শকের কাছে এই নির্দেশিকা পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে।

যেভাবে আরো একবার করোনার তৃতীয় ঢেউ আছড়ে পড়ার আশঙ্কা দেখতে পাওয়া গেছে পশ্চিমবঙ্গ সহ গোটা দেশে, তাতে করে স্কুল-কলেজ খুলে রাখার সিদ্ধান্ত আরো একবার খতিয়ে দেখার নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। গঙ্গাসাগরে প্রশাসনিক বৈঠক থেকে সমস্ত শিক্ষক মন্ডলীদের উদ্দেশ্যে এই নির্দেশ দেন মুখ্যমন্ত্রী। আক্রান্তের সংখ্যা বাড়লে আগামী দিনে স্কুল-কলেজ আরো একবার বন্ধ হতে পারে বলে জানান তিনি।

তবে পুরোটাই রিভিউয়ের ভিত্তিতে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন তিনি। বৃহস্পতিবার গঙ্গাসাগর থেকে ফেরার পথে এই বিষয়ে কথা বলতে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন,” স্কুল-কলেজ আমি বন্ধ করতে বলিনি। কিন্তু যেভাবে সংক্রমণ ছড়াচ্ছে, সেখানে অদূর ভবিষ্যতে স্কুল-কলেজ বন্ধ হতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। যদি এখনই সবকিছু বন্ধ করার দরকার নেই। পরিস্থিতি খতিয়ে দেখে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে”।