বড় খবরঃ দেশকে আত্মনির্ভর করে তুলতে এবার থেকে দেশের মধ্যেই তৈরি করা হবে 101 টি প্রতিরক্ষা সামগ্রী…

ভারতের প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের তরফ থেকে রবিবার বড় ঘোষণা করা হয়। রবিবার প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং টুইট করে ঘোষণা করেন এই সিদ্ধান্তের কথা। অবশ্য এই দিন সকালেই প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের তরফ থেকে একথা ঘোষণা করা হয়। এর আগে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী আত্মনির্ভর ভারত গড়ে তোলার জন্য ডাক দিয়েছেন। এরপর থেকেই কীভাবে দেশ আত্মনির্ভর হয়ে উঠবে সেই বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হচ্ছে। তাই সেই পথ অনুসরণ করে প্রতিরক্ষাতেও আত্মনির্ভর দিকে এগোচ্ছে ভারত।

আগে বাইরের দেশ থেকে যে অস্ত্র-গুলি প্রচুর টাকা ব্যয় করে ভারত কিন্তু এখন সেই সমস্ত অস্ত্র-গুলি ভারতে তৈরি করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হচ্ছে। ইতিমধ্যেই মোট 101 টি সরঞ্জামের তালিকা প্রকাশ করেছে যেগুলি আর বাইরের দেশ থেকে আনা হবে না। তবে অস্ত্র আমদানি কতদিন পর্যন্ত বন্ধ থাকবে সে বিষয়ে স্পষ্ট ভাবে জানানো হয়নি কিন্তু অনির্দিষ্টকালের জন্য অস্ত্র আমদানি বন্ধ থাকছে। এ বিষয়ে প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং জানিয়েছেন, ভারতীয় সেনাবাহিনী সরকারি এবং বেসরকারি সংস্থা এবং স্টেক হোল্ডারদের সঙ্গে একাধিকবার বৈঠকে বসার পরেই এই সরঞ্জামগুলির তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে।

এছাড়াও এদিন তিনি আরও জানিয়েছেন যে, 2015 থেকে 2020 সালের মধ্যে তিন বাহিনীতে প্রায় সাড়ে তিন লক্ষ কোটি টাকার অস্ত্র আমদানি করা হয়েছে। এরপর এই সিদ্ধান্ত নেওয়ার পর থেকে ভারতীয় সংস্থায় চার লক্ষ কোটি টাকার বরাদ্দ পেয়েছে আগামী 6 থেকে 7 বছরের মধ্যে। 101 টি সরঞ্জামের তালিকার মধ্যে রয়েছে অ্যাসল্ট রাইফেল, রাডার, সশস্ত্র গাড়ি, ট্রান্সপোর্ট এয়ারক্রাফট সহ একাধিক উন্নত প্রযুক্তির অস্ত্র শস্ত্র।এবার থেকে ভারতে এই সমস্ত অস্ত্রশস্ত্র তৈরি করা হবে। সম্প্রতি দীর্ঘ অপেক্ষার পর ভারতের মাটিতে পা দিয়েছে রাফাল।

প্রায় 7364 কিলোমিটার পথ অতিক্রম করে ভারতে এসে পৌঁছেছে রাফাল। আর এরপর থেকেই ভারতীয় বায়ুসেনার শক্তি কয়েকগুণ বেড়ে গেছে। 36 টি রাফালের মধ্যে প্রথম ধাপের পাঁচটি রাফাল এসেছে ভারতের কাছে বাকিগুলি ধীরে ধীরে আসতে থাকবে ভারতের হাতে। এই রাফাল চালানোর জন্য ভারতীয় বায়ুসেনা পাইলট কে প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। কয়েকজন পাইলট কিছুদিন আগে ফ্রান্সে গিয়ে প্রশিক্ষণ নিয়ে এসেছে এই আধুনিক যুদ্ধবিমান চালানোর। তারাই ভারতে উড়িয়ে নিয়ে এসেছে রাফালকে। কিছুদিন পর থেকে ভারতে প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে এই আধুনিক যুদ্ধবিমান চালানোর।