খাদ্যদপ্তরের তরফ থেকে বেরিয়ে এলো বড় নির্দেশ!রাজ্যে রেশনে আধার সংযুক্তিকরণ করবেন ডিলাররাই

এ কথা হয়তো আপনারা শুনে থাকবেন যে রেশন কার্ডের সঙ্গে আধার কার্ডের সংযুক্তিকরণ প্রক্রিয়াটি করার নির্দেশ ইতিমধ্যে দিয়ে দেওয়া হয়েছে খাদ্য দপ্তর এর তরফ থেকে।আর আগামী 16 ই অক্টোবর থেকে মহাকুমা ভিত্তিক এই প্রশিক্ষণ পর্ব শুরু করা হতে চলেছে।সাথে সাথে বলে রাখি রেশন কার্ডের সাথে আধার কার্ডের সংযুক্তিকরণ করার প্রক্রিয়াটি আগামী অক্টোবরের 31 তারিখ পর্যন্ত চলবে।আরো বলে রাখি এই প্রশিক্ষণ শিবিরে কীভাবে রেশন কার্ডের সঙ্গে আধার কার্ডের সংযুক্তিকরণ করা হবে তা নিয়ে প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে।

খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক এই বিষয় নিয়ে জানিয়েছেন এখনকার সংগ্রাহকদের আধার সংযুক্তিকরণ এ কাজটি নভেম্বর মাসের মধ্যে শেষ করে যাবে বলে আশঙ্কা করা যাচ্ছে। আর এই বিশেষ অভিযানে যে নতুন কার্ড গুলো হবে সেগুলি ডিসেম্বর মাসের মধ্যেই শেষ হয়ে যাবে বলে আশাবাদী খাদ্য দপ্তরও। তবে আরো বলে রাখি অক্টোবরে রেশন ডিলারের কাছে কোন প্রকার আধার সংযুক্তিকরণ এর কাজ হচ্ছে না।

সম্প্রতি আপনার যেমন কি জানেন খাদ্য দপ্তর এর তরফ থেকে এক নির্দেশিকা জারি করা হয়েছে যেখানে বলা হয়েছে রেশন কার্ডের সঙ্গে আধার কার্ডের নম্বর সংযুক্তিকরণ করাতেই হবে তা বাধ্যতামূলক। আর এই পদ্ধতির মাধ্যমে রেশন ডিলারের কাছ থেকে এবার ই-পস মেশিনের মাধ্যমে গ্রাহকেরা তাদের আঙ্গুলের ছাপ অথবা আধার নম্বর নথিভূক্ত করাতে বলা হয়েছে। এই পদ্ধতিটি গত 23 শে সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হওয়ার কথা ছিল কিন্তু ডিলাররা সেই কাজ এখনো পর্যন্ত শুরু করেনি বলে এমনটাই অভিযোগ উঠেছে।

তারপরই পুজোর আগে রেশন ডিলারের সঙ্গে বৈঠকে বসেন খাদ্যমন্ত্রী সেই বৈঠকে দ্রুত রেশন কার্ডের সঙ্গে আধার সংযুক্তিকরণ এর কাজ শুরু করার কথাও জানান তিনি। তবে অধিকাংশ ডিলারদের তরফ থেকে একাধিক প্রশ্ন উঠে আসে এই নিয়ে, এখানে সবচেয়ে বড় প্রশ্ন হয়ে উঠে কিভাবে করা হবে রেশন কার্ডের তাকে আধার কার্ডের সংযুক্তিকরণ সে বিষয়ে নেই তাদের জ্ঞান। তাই সেসব রেশন ডিলারের কথা মাথায় রেখে এবার খাদ্য দপ্তর এর তরফ থেকে একটি প্রশিক্ষণ শিবিরে কথা বলা হয়। সেই মতই এবার আধার সংযুক্তিকরণ এর প্রশিক্ষণ শিবির চালু করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।খাদ্য দপ্তর এর তরফ থেকে ঠিক করা হয়েছে মহকুমা ভিত্তিক প্রশিক্ষণ কেন্দ্র গড়ে তোলা হবে।

কোন বড় অডিটোরিয়ামে ডিলারদের এই প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে।সাথে সাথে আরও জানানো হয়েছে যেদিন এই এলাকার ডিলারদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে সেদিন সেই সংশ্লিষ্ট এলাকার রেশন দোকান বন্ধ থাকবে।আপাতত ঠিক করা হয়েছে যে স্থানীয় অফিস থেকে এখন যেসব গ্রাহকেরা নতুন রেশন কার্ড নেবেন তাদের সেখানেই আধার সংযুক্তিকরণ এর কাজ সম্পন্ন করা হবে। বর্তমানে রাজ্যের ডিজিটাল রেশন কার্ড রয়েছে প্রায় 9 কোটি 10 লক্ষ এর কাছাকাছি। তবে সময়ের সাথে আরো এর সংখ্যা বাড়তে চলেছে। এর আগে প্রথম পর্যায়ে 9 থেকে 27 শে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত যে বিশেষ শিবিরের আয়োজন করা হয়েছিল সেখানে নতুন কার্ডের জন্য প্রায় 8 লক্ষ আবেদন জমা পড়েছে।

দ্বিতীয় পর্যায়ে শিবির হবে 5 থেকে 30 নভেম্বর পর্যন্ত।আর এত বিপুলসংখ্যক গ্রাহকদের আধার সংযুক্তিকরণ এর কাজ রেশন অফিসে বসে করা সম্ভব নয়। এর দরুনই এবার রেশন ডিলারদের উপর খাদ্য দপ্তরে নির্ভর করতে হচ্ছে। কেন্দ্র সরকারের তরফ থেকে এর আগেই সমস্ত রাজ্যগুলিকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে রেশন কার্ডের সাথে আধার কার্ড নথিভুক্তকরণের জন্য। যদি আবার প্রয়োজন পড়ে তাহলে এই নথিভুক্তকরণের সময়সীমাকে ফের বাড়ানো হতে পারে বলেও জানতে পারা যাচ্ছে।

তবে যাই হোক রেশন ডিলার এর তরফ থেকে যদি এ কাজ সম্পন্ন করা হয় তাহলে সাধারণ মানুষকে অনেকটা কমই হয়রানির শিকার হতে হবে।

Related Articles

Close