কেন্দ্র থেকে বড় ঘোষণা নতুন বছরের শুরুতে বিদ্যুতের ক্ষেত্রে আসতে চলেছে এক বড় পরিবর্তন।

বৈদ্যুতিক বিল নিয়ে আমাদের অনেক সমস্যা হয়ে থাকে। অনেকের অভিযোগ থাকে বেশি বিল চলে এসেছে।অনেকেই প্রচুর ইলেকট্রিক পুড়িয়ে মাসের শেষে যখন বিল হাতে পায় তখন মাথায় হাত দেয়। তবে মোদি সরকার এই সমস্যার সমাধান করতে চলেছেন। আমরা যেমন মোবাইল ফোনে প্রিপেইড বিল ব্যবহার করি তেমনি বৈদ্যুতিক বিল এবার প্রিপেড হতে চলেছে। আগেই বিদ্যুতের বিলের টাকা দিতে হবে। কিন্তু সেটা কখনোই বেশি নেওয়া হবে না। আপনার যতটা দরকার ততটাই দিতে হবে অর্থাৎ আমাদের রিচার্জ করতে হবে।

এই সোমবার বিদ্যুৎ মন্ত্রকের পক্ষ থেকে এ নির্দেশিকা জারি করা হয়।
আর এই নির্দেশিকা অনুসারে আগামী বছরের এপ্রিল মাসের প্রথম দিন থেকেই বিদ্যুতের প্রিপেইড মিটার চালু হয়ে যাবে। কেন্দ্রীয় বিদ্যুৎ মন্ত্রকের তরফ থেকে জানানো হয়েছে যে এই প্রিপেইড মিটার এপ্রিল মাসের আগেও চালু হয়ে যেতে পারে। তবে এই ব্যবস্থা চালু করার আগে প্রতিটি গ্রাহকের ঘরে আলাদা করে মিটার বসাতে হবে। ওই মিটারে গ্রাহকরা জানতে পাবে যে কতটা বৈদ্যুতিক ব্যবহার করা হয়েছে। এদিকে যেমন বিদ্যুৎ ব্যবহার সম্পর্কে গ্রাহকরা জানতে পারবে তেমনি পরিষেবা প্রদানকারী সংস্থা গুলিও বিদ্যুতের ব্যবহার সম্পর্কে সচেতন থাকতে পারবে। কেন্দ্রীয় বিদ্যুৎ মন্ত্রী আরকে সিং পরিষেবা প্রদানকারী সংস্থা গুলির থেকে গ্রাহকদের পরিষেবাটি কে বেশি গুরুত্ব দিয়ে দেখছেন। তিনি বলেছেন যে,’অনেক জায়গা থেকেই বিল বেশি আসার অভিযোগ আসছে।

এর ফলে গ্রাহকদের আর ওই সমস্যায় পড়তে হবে না। তাই এই প্রিপেইড মিটারের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।’এই নতুন মিটারে গ্রাহক যেরকম চাইবেন সেরকম ভাবেই বিল দিতে পারবেন । প্রতি মাসে বিল দেওয়ার বাধ্যবাধকতা আর থাকছে না । অর্থাৎ এক্ষেত্রে বিল দেওয়ার সম্পূর্ণ ক্ষমতা গ্রাহকদের হাতে দিয়ে দেওয়া হচ্ছে । তিনি এও জানান যে এ বিষয়টি এখনও পরীক্ষামূলক পর্যায়ে রয়েছে।