মোদির ব্রিগেডের মঞ্চ মাতিয়ে দিলেন ভূমিপুত্র মিঠুন চক্রবর্তী, বললেন “আমি গর্বিত, আমি বাঙালি”

নির্বাচন আসতে আর মাত্র হাতে গোনা কয়েকটা দিন। সমস্ত রাজনৈতিক দলের এখন সাজ সাজ রব উঠেছে। বিভিন্ন রাজনৈতিক দল থেকে প্রার্থী তালিকা ঘোষিত হচ্ছে। পাশাপাশি নির্বাচনী প্রচারণা চলছে পুরোদমে। রবিবার অর্থাৎ ৭ মার্চ অনুষ্ঠিত হয়েছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ব্রিগেড জনসভা। এবারের এই জনসভাতে দেখা গেল সব থেকে বড় চমক। এই জনসভাতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির পাশে উপস্থিত ছিলেন বলিউড তথা টলিউডের অভিনেতা মিঠুন চক্রবর্তী। বিভিন্ন সিনেমার ডায়লগ দিয়ে বাংলার মানুষের মন জয় করে নিলেন এই অভিনেতা।

 

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ভোট মঞ্চে নিজেদের জমিকে শক্ত করার জন্য তিনি বাংলার সমস্ত স্তরের মানুষের কাছে প্রচার চালিয়ে যেতে চান। সেই জন্য তিনি ব্রিগেডে উপস্থিত করেছেন বলিউড তথা টলিউডের অভিনেতা মিঠুন চক্রবর্তীকে। কয়েকদিন আগে মিঠুন চক্রবর্তীর মুম্বাইয়ের বাড়িতে আরএসএস প্রধান মোহন ভগৎ কে গেছিলেন বৈঠক করতে। তারপর থেকে জল্পনা শুরু হয় যে মিঠুনদা নাকি বিজেপিতে যোগদান করছেন।

সমস্ত জল্পনার অবসান ঘটিয়ে এদিন ব্রিগেড মঞ্চে মিঠুন চক্রবর্তীকে দেখা গেল। মিঠুন চক্রবর্তী এদিন ব্রিগেড মঞ্চে বক্তৃতা দিতে গিয়ে মিঠুন তাঁর জীবন সংগ্রামের কথা বলতে শুরু করেন। জনতা তাঁর কাছে বিভিন্ন জনপ্রিয় সিনেমার ডায়লগ শোনার অনুরোধ করেন।অনুরোধ রাখতে গিয়ে মিঠুন চক্রবর্তী প্রথমেই এমেলে ফাটাকেষ্টো সিনেমার ডায়লগ দেন।” মারব এখানে, লাশ পড়বে শ্মশানে।” তবে তাঁর এই বক্তব্যকে ঘিরে বিতর্কের সঞ্চার হয়েছে। এরপর তিনি নিজেই জানিয়েছেন, এটা তাঁর ভোট প্রচারের মূলমন্ত্র নয়।

‘তারপর তে ডায়গলটি দিলেন সেটি তাঁর অভিনীত ‘আমি সুভাষ বলছি’ সিনেমার ডায়লগ ‘আমি গর্বিত, আমি বাঙালি’। আবার কখনও বলেন, “আমি জল ঢোড়াও নই, বেলে বোড়াও নই। আমি জাত গোখরো। এক ছোবলেই ছবি।”