ভারতের কূটনৈতিক চালে বেসামাল চীন, একধাক্কায় 4000 কোটি টাকার ক্ষতি বেজিংয়ের..

প্রসঙ্গত যেমনটা আমরা জানি গালওয়ান উপত্যকাতে ভারত-চীনের সংঘর্ষের জেরে যে 20 জন জওয়ান শহীদ হয়েছিলেন আর তারপর থেকেই এই ঘটনা ঘটে। যেখানে দেশের মানুষ একজোট হয়ে চীনা পণ্য বয়কটের ডাক দেন। আর আরো একবার চীনকে বড়সড় ধাক্কা দিল ভারত, এবার ভারতের এক ধাক্কাতে বেজিংয়ের প্রায় চার হাজার কোটি টাকার ক্ষতি। ভারত যে আত্মনির্ভর প্রকল্পের ডাক দিয়েছিল তা ইতিমধ্যে সত্যি হতে শুরু হয়ে গেছে কারণ এবার 2020 সালে রাখির উৎসবে চীনকে সরিয়ে পুরো বাজার দখল করলো ভারত।

আর এখন প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী জানতে পারা যাচ্ছে এর ফলে চীনের প্রায় 4 হাজার কোটি টাকার লোকসান হয়েছে। ভারতের তরফ থেকে এবার চীনকে পিঠে নয় পেটে মারা হল আর ভারতের এই কূটনৈতিক চালে বেসামাল চীনের অর্থনীতি। অন্যদিকে এ বিষয়ে বিশেষজ্ঞদের মতামত এইভাবে চীনা পণ্য বর্জন করা ভারতীয়দের পক্ষে এক গুরুত্বপূর্ণ সাফল্য। এদিকে জুন মাসের 10 তারিখে সিএআইটির তরফ থেকে দেশীয় রাখি তৈরি করার ডাক দেওয়া হয়েছিল আর সেই ডাকে সাড়া দিয়িছিল দেশে রাখি প্রস্তুতকারক সংস্থাগুলি।

এবছর দেশজুড়ে প্রায় এক কোটি রাখি তৈরি হয়েছে এবং এই রাখি প্রস্তুতকারক সংস্থাগুলি সঙ্গে বাড়ির মহিলারাও আঙ্গনওয়ারিতে এই রাখি তৈরীর কাজ করা হয়। তাই এবার চীন নয় বরং ভারত দখল করেছে রাখির বাজার এবং এই বার যে রাখিগুলি প্রস্তুত করা হয়েছে সেগুলিতে ব্যবহার করা হয়েছে ভারতীয় পণ্য দিয়েই। এবছর চীন থেকে একটিও রাখি রপ্তানি করেনি ভারত জানা গিয়েছে প্রতি বছর ভারতে প্রায় 50 কোটি রাখি বিক্রি হয় যা ভারতে প্রায় 6 হাজার কোটি টাকার কাছাকাছি যার মধ্যে আবার 4000 কোটি টাকার রাখি চীনের তৈরি।

তাই বলা যেতে পারে কেন্দ্র সরকারের তরফ থেকে এবার বরাবরের মতো ভারত থেকে চীনাপণ্য তুলে দেওয়ার ক্ষেত্রে অনেকখানি গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে। অন্যদিকে ভারত সরকার চীনকে শায়েস্তা করতে চীনের সাথে একাধিক চুক্তি বাতিল করে দেন। তার পাশাপাশি সরকারি কেনাকাটায় চীনের কোম্পানি গুলোর উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়। কেন্দ্র আর রাজ্য সরকারের তরফ থেকে কোনো প্রোজেক্টেই আর চীনের কোম্পানি গুলোকে নতুন করে নেওয়া হচ্ছে না। এছাড়াও পুরনো প্রোজেক্ট গুলো থেকেই চীনের কোম্পানি গুলোকে ছাঁটাই করা হচ্ছে। এমনকি সরকারের তরফ থেকে এখন যে নতুন প্রজেক্ট গুলোর কথা ঘোষণা করা হচ্ছে সেখানে চীনা কম্পানি গুলিকে অংশগ্রহণ করতে দেওয়া হচ্ছে না।