ভোটের আগে পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের গলায় শোনা গেল করুন স্বীকারোক্তি

শনিবার অর্থাৎ ৬ মার্চ পাকিস্তানের সংসদের নিম্নকক্ষের ভোট অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এই ভোটের পরে দেখা যাবে যে ইমরান খান তাঁর গদি টিকিয়ে রাখতে পেরেছেন কিনা। গত বছর থেকেই বিরোধী জোটের প্রতিবাদের জেরে পিঠ ঠেকে গেছে পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের। গদি হারানোর আগে তিনি করে গেলেন করুন স্বীকারোক্তি। এক ভিডিও বার্তার মাধ্যমে তিনি বলেন যে ভারতবর্ষ পাকিস্তানের থেকে অনেকটাই উন্নত দেশ। পাকিস্তান ভারতের থেকে অনেকটাই নিচে নেমে গিয়েছে। দুর্নীতির বাতাবরণ ইসলামাবাদের উন্নয়নের আশাকে শেষ করে দিয়েছে।

তিনি বলেছেন স্বাধীনতার পর ভারতবর্ষ একটু একটু করে উন্নতি স্তরে পৌঁছেছে আর অপরদিকে পাকিস্তান ক্রমশ পিছিয়ে পড়েছে। দুর্নীতিতে ভরে গেছে পাকিস্তান দেশটি। ভোটের দুদিন আগে বৃহস্পতিবার অর্থাৎ ৪ মার্চ ভিডিও বার্তায় ইমরান খানের কন্ঠে শোনা যায় রীতিমতো ভারতীয় বন্দনা। তিনি বলেন “আজ থেকে ৫০-৫৫ বছর আগে সারা বিশ্বে উন্নয়নের প্রতীক হিসেবে পাকিস্তানকে ধরা হত। আমাদের দেশের এমনই একটা ভাবমূর্তি ছিল বিশ্বের কাছে। আমেরিকায় গেলে পাক প্রেসিডেন্টকে স্বাগত জানাতে বিমানবন্দরে হাজির থাকতেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।”

এছাড়াও ইমরান খান বলেন যে তাঁকে যদি তাঁর গদি ছাড়তে হয় সেটাকে ছাড়তেও তাঁর আপত্তি নেই। পাকিস্তান যে ক্রমশই নিচে নামতে শুরু করেছে এই প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “এর সূচনা হয়ে গিয়েছিল ১৯৫০ সালের পর থেকেই। দুর্নীতি আকাশ ছুঁয়ে ফেলতে শুরু করেছিল। দলীয় প্রতীক ছাড়া নির্বাচন শুরু হয় দেশে। সেই সময় থেকেই পাকিস্তানের ভাগ্য বদলে যেতে থাকে।”

এছাড়া ভারতের প্রশস্তি করতে গিয়ে তিনি আরও বলেন, ”ক্রিকেট খেলতে যখন ভারতে যেতাম, তখন মনে হত কোনও গরিব দেশ থেকে এক সম্পদশালী উন্নত দেশে খেলতে এসেছি।”