শেষ হল এটিএম কার্ডের দিন! এবার থেকে টাকা উঠানো যাবে ইউপিআই এর মাধ্যমে…

বর্তমান দিনে মানুষেরা এখন বাইরে ঘুরতে গেলে পকেটে মোটা অঙ্কের টাকা নিয়ে বেরোয় না বললেই চলে। কারণ বাইরে বেরোলে পকেটমারদের ভয় সবারই থেকে যায়। ফলে এখনকার দিনের মানুষেরা প্রত্যেকে একটি করে এটিএম সঙ্গে নিয়ে বাইরে বেরোয় যাতে যেকোনো এটিএম থেকে তারা সেই কার্ডের মাধ্যমে টাকা তুলে নিতে পারে। কিন্তু এটিএম নিয়ে ঘোরাফেরা করলে একটি ভয় থেকে যায়।

কারণ এটিএম কার্ড চুরি হয়ে যাবার বা বর্তমান দিনে যা এটিএম স্কিমিং বেড়ে গেছে তাতে ভয় পাওয়ারই কথা। এরকম একটা পরিস্থিতিতে জাতীয় পেমেন্ট কর্পোরেশন অফ ইন্ডিয়া(এনপিসিআই), ইউনিফাইড পেমেন্ট ইন্টারফেস(ইউপিআই) এর মাধ্যমে টাকা তোলার ব্যবস্থা করছে যার ফলে কার্ডের ব্যবহারের পরিমাণ ও কমবে। এন্ড-টু-এন্ড নগদ এবং ডিজিটাল পেমেন্ট সলিউশন প্রোভাইডার এজিএস ট্রান্সট্যাক্ট টেকনোলজিসের সাথে সহযোগিতা করে ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া, আগামী ছয় মাসের মধ্যে এই ব্যবস্থা চালু করতে চলেছে বলে খবর পাওয়া গেছে।

যাতে ইউপিআই এর দ্বারা মানুষেরা খুব সহজে টাকা তুলতে পারে। তবে শুধুমাত্র এই ব্যাংকেই না অন্যান্য ব্যাংক গুলিতেও এই পদ্ধতি খুব শীঘ্রই চালু করতে চলেছে। এনপিসিআই ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া এবং এজিএসের বিষয়টা পুরোপুরি সুষ্ঠুভাবে কার্যকর করার জন্য একটি নতুন কমিটি গঠন করেন। এই বিষয়টি পুরোপুরি ভাবে কার্যকর হওয়ার পর গ্রাহকরা এটিএম এর থেকে নির্দিষ্ট নিয়মে UPI লেনদেনের মত একটি QR কোড স্ক্যান করে খুব সহজে টাকা তুলতে পারবেন।

আবার কিছু গ্রাহক নগদ টাকা তোলার জন্য তারা নিজেদের আধার কার্ড ব্যবহার করে থাকেন। কিন্তু এই প্রক্রিয়াটি কিছুটা জটিল। কিন্তু এই নয়া পদ্ধতিতে টাকা তোলার চালু হলে একটি QR কোড স্ক্যান করেই গ্রাহকরা টাকা তুলতে পারবেন। গণ মাধ্যমের একটি প্রতিবেদন থেকে জানা গিয়েছে, এনপিসিআই ভারতের আয়কর বিভাগের সঙ্গে পরিকল্পনা করছে ইউপিআই ব্যবহার করে অর্থ আদান-প্রদান করার জন্য। এছাড়াও আয়কর বিভাগ অন্যান্য ডিজিটাল পদ্ধতি যেমন ডিজিটাল ওয়ালেট, ক্রেডিট কার্ড ইত্যাদি বিষয়ের উপর জোর দিচ্ছে। এই বছরের অর্থাৎ 2019 এর অক্টোবর মাসে ইউপিআই এ লেনদেন 1 লক্ষের মাত্রা ছাড়িয়ে গেছে। নভেম্বরে একটি প্রতিবেদনে এনপিসিআই জানিয়েছেন, ইউপিআই নভেম্বর মাসের জন্য 1.22 বিলিয়ন লেনদেনে পৌঁছেছে।

আরও পড়ুন :