প্লাস্টিক মুক্ত ভারত গড়ে তুলতে আগামী 2 অক্টোবর থেকে মোদি সরকার দেশজুড়ে চালু করতে চলেছে…

ভারতের ঋষি মুনিদের নির্দেশ অনুসারে ঘটির জলে জল পান করা হতো কারণ ঘটির জলের পৃষ্ঠটান কম। তাই ঘটির জল পান করা আমাদের শরীরের পক্ষে খুবই উপকারী। কিন্তু এর পরবর্তী সময়ে ভারতে পর্তুগাল আসার পর গ্লাসের ব্যবহার বেড়ে যায়। এরপর বর্তমান দিনে প্রত্যেকটি বাড়িতে প্লাস্টিকের বোতলে জল রাখার প্রবণতা দেখা যাচ্ছে। এর ফলে রোগের পরিমাণ  ব্যাপকভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে । আগে ভারতে মাটির পাত্রে রান্না থেকে শুরু করে জল রাখা হতো। ফলে মানুষের শরীরের ক্ষেত্রে এটি অনেক পুষ্টিকর এবং উপকারী।

বর্তমান দিনে ভারতীয়রা অ্যালুমিনিয়ামের পাত্রে রান্না করে যা শরীরের পক্ষে প্রচন্ড ক্ষতিকারক। তাই দেশের সমস্ত মানুষের স্বার্থে সরকার একটি সিদ্ধান্ত নিয়েছে। সেই সিদ্ধান্তটি হলো প্লাস্টিকের পাত্র ব্যান্ড করে অর্থাৎ নিষিদ্ধ করে মাটির পাত্র বা বিকল্প কিছু প্রমোট করার। এর ফলে গ্রামীন এলাকাগুলো যেমন আর্থিক দিক থেকে আগের তুলনায় অনেক মজবুত হবে তেমনি এর পাশাপাশি মানুষ রোগমুক্ত হতে পারবে। গবেষণায় দেখা গেছে প্লাস্টিকের ব্যবহার শুধুমাত্র মানুষের জন্য নয় অন্যান্য প্রাণীদের ক্ষেত্রে বিপদজনক।

এটি পরিবেশকে দূষিত করার পাশাপাশি নানান রোগ ছড়ায়। বর্তমানে আমাদের দেশের সবথেকে বড় বর্জ্য পদার্থ হল প্লাস্টিক কারণ এটি কে বিনষ্ট করা খুবই কঠিন। এর আগেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী স্বচ্ছ ভারত অভিযান নামের একটি প্রকল্প এনে দিয়েছে আমাদের দেশে। তাই পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার বিষয়ে এবং প্লাস্টিকের পার্শ্ব প্রতিক্রিয়ার কথা মাথায় রেখে প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদি বলেছেন যে, আগামী 2 অক্টোবর থেকে একক প্লাস্টিকের ব্যবহারের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হবে।

প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদির এই পদক্ষেপের ওপর সমর্থন জানিয়ে এমএসএই মন্ত্রকের অধীনে কাজ করা খাদি গ্রাম শিল্প গুলি বাঁশের বোতল বাজারে ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। এমএসএই মন্ত্রকের তরফ থেকে অক্টোবর মাস থেকেই এই মাসের বোতল চালু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এর ফলে আমাদের শরীর স্বাস্থ্য ঠিক থাকার পাশাপাশি পরিবেশও সুরক্ষিত থাকবে। এমএসএই মন্ত্রকের তরফ থেকে জানানো হয়েছে এই বোতলের ধারণক্ষমতা কমপক্ষে 750ml হবে। এবং এর দাম কমপক্ষে 300 টাকা থেকে শুরু হবে। তবে এই বোতলটি অনেকদিন পর্যন্ত টিকবে এবং সেটি নষ্ট হয়ে গেলে সহজেই বিনষ্ট করা যাবে।

খবর পাওয়া গেছে কেন্দ্রীয় এমএসএমই মন্ত্রী নিতিন গাডকারি 1 অক্টোবর এই বোতলটি লঞ্চ করবেন এবং তা বিক্রি হওয়া শুরু হবে 2 অক্টোবর থেকে। আপনারা হয়তো অনেকেই জানেন না পূর্বে প্লাস্টিকের বোতল বন্ধ করতে এক্সেল গ্লাস প্রচার করা। এদিকে মাটির পাত্রের ব্যবহার যদি পারে তাহলে কুমোর সমাজ আর্থিক দিক থেকে অনেকটা সচ্ছল হবে। দেশকে আর্থিক দিক থেকে এবং সামাজিক দিক থেকে শক্তিশালী করে তোলার জন্য এই পদক্ষেপ বিশেষ কার্যকরী হবে বলে মনে করছেন অনেকে।

Related Articles

Back to top button