মমতাকে কটাক্ষ করতে গিয়ে তুমুল বিতর্কে বাবুল সুপ্রিয়, দ্রুত সমালোচনায় পোস্ট ডিলিট

ফের বিতর্কে বাবুল সুপ্রিয়৷  ‘বাংলা নিজের মেয়েকেই চায়’ এই স্লোগানে  নির্বাচনী প্রচার এর কাজ করছে তৃণমূল। তৃণমূলের এই প্রচারকে পালটা কটাক্ষ করলেন বাবুল সুপ্রিয়৷ আর এই কটাক্ষ করতে গিয়েই তুমুল বিতর্কে জড়ালেন বাবুল সুপ্রিয়। এর জেরে শেষমেশ তিনি তার করা পোস্টটি মুছেও ফেললেন৷

সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি ছবি পোস্ট করেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয় (Babul Supriyo)।  মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Mamata Banerjee) ছবির পাশে হিন্দিতে লেখা ‘আমি বাংলার মেয়ে’। তার ঠিক নিচে অমিত শাহর  (Amit Shah) একটি  ছবি। অমিত শাহ এর ছবির পাশে লেখা, “মেয়েরা পরের ধন। এবার বিদায় করে দেওয়া হবে।” এই ছবিটি নিয়েই বিতর্ক শুরু হয়েছে৷

মহিলাদের প্রতি বিজেপি সাংসদের মনোভাবের এহেন নীচ মানসিকতার সমালোচনা করেছেন অনেকেই। এমনকী বিজেপির দুই নেত্রী লকেট চট্টোপাধ্যায় ও রূপা গঙ্গোপাধ্যায় পর্যন্ত বাবুল সুপ্রিয় এর  এমন মন্তব্যের বিরোধিতা করেছেন৷  চাপের মুখে শেষমেশ পোস্টটি মুছে দিয়েছেন বাবুল। যদিও ততক্ষণে স্ক্রিনশট এর মাধ্যমে কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর সেই পোস্ট ভাইরাল হয়ে গেছে৷

বাবুলের সমালোচনায় কেউ কেউ লিখেছেন, “আপনার নারী বিদ্বেষী স্বরূপ তো প্রকাশ করে ফেললেন। এই কারণেই বিজেপিতে যোগ দিতে পেরেছেন। যাদবপুরে মারের কথা মনে পড়ে”?

প্রশান্ত কিশোরের এই তিনটি মাস্টারস্ট্রোক বদলে দিতে পারে বাংলায় বিধানসভা নির্বাচনের ছবি

নেটিজেনদের একাংশের বক্তব্য, “এই নারীবিদ্বেষী মনোভাব আসলে উত্তর ভারতের। এটি বাংলার সংস্কৃতি নয়। কেন আপনাদের বাংলায় বহিরাগত বলা হয়, সেটা বারবার প্রমাণ করছেন।”  সরাসরি আক্রমণ করে জনৈক ফেসবুক বুবহারকারী লিখেছেন, “বাংলায় মেয়েদের এখন আর অন্যের ঘরের ধন ভাবা হয় না। আপনারা সেই প্রাচীন পিতৃতান্ত্রিক যুগেই পড়ে আছেন। এর চেয়ে ভাল কিছু আশা ছিল আপনাদের থেকে।”

বাবুল সুপ্রিয় সরাসরি বিতর্ক নিয়ে কোনো মন্তব্য না করলেও  পোস্টটি ডিলিট করে তিনি বুঝিয়ে দিয়েছেন, যে এমন মন্তব্য তার করা উচিত হয়নি।