আজ প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে মন্ত্রিসভায় নিরাপত্তা সংক্রান্ত কমিটির বৈঠক! পুলওয়ামার জঙ্গী হামলার জবাবে…

পুলওয়ামার ঘটনা দেশের নিরাপত্তার বিষয়টি চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছে ভারতকে। এই ঘটনার পরের জম্মু-কাশ্মীরের সমস্ত নিরাপত্তা বিষয়টি খতিয়ে দেখতে শুক্রবার মন্ত্রিসভায় নিরাপত্তা সংক্রান্ত কমিটির বৈঠক ডাকা হয়েছে। সকাল 10 টা থেকে গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক শুরু হবে। শুক্রবার এর পুরো বৈঠকে সভাপতিত্ব করবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এই বৈঠকে থাকছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং, প্রতিরক্ষা মন্ত্রী নির্মলা সীতারমন, বিদেশ মন্ত্রী সুষমা স্বরাজ, অর্থমন্ত্রীর পীযূষ গোয়েল এবং জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত ডোভাল। এই জঙ্গি হামলার পর এই জম্মু-কাশ্মীরের নিরাপত্তার বিষয়টি নিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং ও জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা মন্ত্রী অজিত ডোভাল এর সঙ্গে কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

এ নিয়ে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং এর কড়া প্রতিক্রিয়া, ” পুলওয়ামা হামলার পিছনে পাকিস্তানের হাত রয়েছে। এই কাজ করেছে পাক মদতপুষ্ট জইশ জঙ্গিরা। এর যোগ্য জবাব দেবে ভারত।” অপরদিকে আবার বিহারের জনসভা বাতিল করে আজ শ্রীনগর যাচ্ছেন রাজনাথ সিং। জম্মু-কাশ্মীরের পরিস্থিতি খতিয়ে দেখার পাশাপাশি তিনি আহত জাওয়ানদের হাসপাতালে দেখতে যাবেন। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সাথে থাকবেন সিআরপিএফের জিডি রাজীব রায় ভাটানাগর। স্বাধীনতার পর 14 ফেব্রুয়ারি কাশ্মীরে আবার ভয়াবহ জঙ্গি হামলা সাক্ষী হলো ভারত। পুলওয়ামার অবন্তীপোরায় জইশের আত্মঘাতী হামলায় নিহত হলেন 44 জন সিআরপিএফ জাওয়ান। এই জঙ্গি হামলায় কমপক্ষে কুড়ি জন জাওয়ান আহত হয়েছেন। প্রধানমন্ত্রীসহ সমস্ত দল এই জঙ্গী হামলার নিন্দায় সরব হয়েছেন। ঘটনাস্থলে এনআইএ ও এনএসজি যাচ্ছে।

খারাপ আবহাওয়ার কারণে জম্মু-কাশ্মীরের হাইওয়ে কয়েক দিনের জন্য বন্ধ ছিল। বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে তিনটের সময় জম্মু থেকে রওয়ানা হয় সিআরপিএফের কনভয়। জাওয়ানরা অনেকেই ছুটি কাটিয়ে কাজে ফিরছিলেন। শ্রীনগর থেকে 30 কিলোমিটার দূরে পুলওয়ামার অবন্তীপোরায় তাদের গাড়ি পৌঁছাতে না পৌঁছাতেই হাইওয়ের উপর ঘটে গেল এক মর্মান্তিক দুর্ঘটনা। সাড়ে 300 কেজি বিস্ফোরক এ উড়ে যায় জাওয়ানদের গাড়ি। এই আত্মঘাতী হামলার দায় স্বীকার করেছে জয়েশ জঙ্গি। এই সিআরপিএফের কনভয়ে ছিল 75 টি গাড়ি। আধাসেনার প্রায় আড়াই হাজার জাওয়ান ছিলেন। সেই সময় আচমকা উল্টো দিক থেকে আসা বিস্ফোরক বোঝাই করা একটি এসইভি জাওয়ানদের গাড়িতে ধাক্কা মারে।

এরপর পাশ থেকে জঙ্গিদের গ্রেনেড ও গুলি আসতে থাকে। যে গাড়ি থেকে টার্গেট করা হয়েছিল সেখানে ছিলেন 76 ব্যাটলিয়নের 39 জন জাওয়ান। ঘটনাস্থলে অনেক জাওয়ান নিহত হন। আহত জাওয়ানদের সঙ্গে সঙ্গে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। আহতদের মধ্যে অনেকেই গুরুতর অবস্থায় রয়েছে এখন। ঘটনাস্থলে আসে পাশে অনেক জঙ্গি লুকিয়ে আছে বলে মনে করা হচ্ছে। ঐ সমস্ত জঙ্গিদের খোঁজ এর চিরুনি তল্লাশি চলছে। এই বিষয়ে আরো নতুন আপডেটের জন্য চোখ রাখুন আমাদের ওয়েব পোর্টালটিতে।