বিশ্বকাপ জিতে অস্ট্রেলিয়ার সাজঘরে জুতোয় মদ ঢেলে খেয়ে উল্লাস প্রকাশ ফিঞ্চদের

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জিতে অস্ট্রেলিয়া সাজঘরে এক নতুন ভাবে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করলেন খেলোয়াড় ফিঞ্চরা । ট্রফি হাতে পাওয়ার পর বিশেষ উল্লাসে ফেটে পড়তে দেখা যায় তাদের। অ্যারন ফিঞ্চ,ম্যাথু ওয়েডদের অস্ট্রেলিয়ার সাজঘরে ট্রফি হাতে উল্লাসে ফেটে পড়তে দেখা গেছে। নিজেদের উল্লাস প্রকাশ করতে জুতার মধ্যে বিয়ে দিলে কি খেতে দেখা যায় ফিঞ্চ কে। সম্প্রতি আইসিসি তরফ থেকে অস্ট্রেলিয়া ম্যাচ জেতার পর এরকম একটি উল্লাসের ভিডিও প্রকাশ পেয়েছে।

সেই ভিডিওটা দেখা গেছে ছবি তোলার পর এই হঠাৎই পা থেকে জুতা খোলেন তিনি এবং তারপর সেই খোলা জুতোর থেকে বিয়ার পান করেন ওয়েড। তবে শুধু তিনি নন অন্যান্য খেলোয়াড়দের ওয়েডের জুতো থেকে বিয়ার খেতে দেখা যায়। বিভিন্ন রকম টুর্নামেন্ট জেতার পর ম্যাচ মাঠের মধ্যে বিয়ার পান করতে এবং উল্লাসে ফেটে পড়তে প্রায়শই দেখা যায়। শ্যাম্পেন খুলে উল্লাস প্রকাশ করা একটি প্রথাগত ঘটনা। কিন্তু এভাবে জুতা থেকে বিয়ার পান করে নিজেদের উচ্ছ্বাস প্রকাশ করার ঘটনা বেশ অন্যরকম।

ম্যাচ জেতার পর অস্ট্রেলিয়ার এই ধরনের উচ্ছ্বাস খুবই স্বাভাবিক এই ধরনের প্রথা কে বলা হয় শুয়ি।। জুতোর মধ্যে থেকে বিয়ার ঢেলে খাওয়াকে তারা সৌভাগ্যের প্রতীক হিসেবে মনে করে । অনেক সময় মহিলাদের জুতো থেকেই শ্যাম্পন পান করা ও সৌভাগ্যের প্রতীক হিসাবে ধরে অস্ট্রেলিয়াবাসীরা। সাধারণভাবে মনে করা হয় পুরুষদের জুতা থেকে বিয়ার বা শ্যাম্পেইন পান করা থেকে কোন মহিলার জুতা থেকে বিয়ার পান করা আরো বেশি সৌভাগ্যের প্রতীক ।

এক্ষেত্রে খারাপ সময় দুর্ভাগ্য কেটে গিয়ে সৌভাগ্য ফিরে আসে। ম্যাচ জেতা যেহেতু একটি শুভলক্ষণ তাই এই ধরনের আচার আচরণ করে থাকে অস্ট্রেলিয়া বাসীরা। অনেক পুরনো নিয়ম অনুসারে এই প্রথা চালু হয়ে আছে। টুর্নামেন্ট জেতার পর প্রায় প্রত্যেকবারই নিজেদের আমোদ উচ্ছ্বাস প্রকাশ করবার জন্য এরকম করা হয়ে থাকে ।