‘আমি চাই না তুমি রাজনীতর সঙ্গে যুক্ত হও, রাজনীতি তোমাকে কিছু দিতে পারবে না’-দাদাকে পরামর্শ অশোক ভট্টাচার্যের

নতুন বছরের শুরু হতে না হতেই গতকাল গোটা ভারতবাসীর কাছে মাথায় বাজ পড়ার মতো খবর বেরিয়ে এসেছিল, যেখানে আচমকাই জিম করার সময় ব্ল্যাক আউট হয়ে যান BCCI প্রেসিডেন্ট তথা ভারতের ক্রিকেটের অন্যতম সেরা অধিনায়ক সৌরভ গাঙ্গুলী (Sourav Ganguly)। প্রিয় দাদা হঠাতই অসুস্থ হয়ে পড়ায় উদবিগ্ন হয়ে পড়েছিল সব মহল। রাজনৈতিক মহল হোক বা ক্রীড়াজগত, সব তরফ থেকেই সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের দ্রুত সুস্থতা কামনা করা হয়।

জানা যায় মৃদু হার্ট অ্যাটাক হয়েছিল সৌরভের, আর এর ফলে কলকাতার উডল্যান্ডস হাসপাতালে ভর্তি করা হয় তাকে। জানা যায় মাইল্ড হার্ট অ্যাটাক হয়েছিল দাদার। ধরা পড়ে সৌরভের হৃদপিন্ডে রক্ত সরবরাহকারী তিনটি ধমনীতে ‘ব্লকেজ’ রয়েছে। চিকিত্‍সকরা জানান, সৌরভ ট্রিপল ভেসেল ডিজিজে ভুগছেন। ইতিমধ্যে তার রাইট করোনারি আর্টারিতে অ্যাঞ্জিওপ্লাস্টি করে স্টেন্ট বসানো হয়েছে। পরে আরও দুটি স্টেন্ট বসানোর পরিকল্পনা রয়েছে চিকিত্সকদের।

 

গতকাল প্রথম স্টেন্ট বসানোর পর থেকেই আপাতত স্থিতিশীল মহারাজ। আপাতত কয়েকদিনের জন্য এখনও তাকে হাসপাতালে রাখা হবে একথা জানান চিকিৎসক দল। আজ হাসপাতলে দাদার সাথে দেখা করতে আসেন অশোক ভট্টাচার্য, যেখানে অশোক ভট্টাচার্য সংবাদমাধ্যমে এ কথা জানান আমি সৌরভ কে প্রথম থেকেই বলেছি, আমি চাই না যে তুমি রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত হও। রাজনীতি তোমাকে কিছু দিতে পারবে না।

 

আর এই বিষয় নিয়ে পরশুদিন রাতেও আমার সৌরভের সঙ্গে কথা হয়েছিল, তাকে এই কথায় বলেছিলাম। আজও আবার সেই কথাই তাকে মনে করিয়ে দিলাম। হাসপাতাল থেকে দেখা করে বেরিয়ে অশোক ভট্টাচার্য বলেন সৌরভের সঙ্গে কথা হয়েছে। “সৌরভ আমায় বলল, আমারও স্টেন্ট বসানো হয়েছিল। আমরা সবাই চাই ও যেন তাড়াতাড়ি সুস্থ হয়ে উঠুক। ড. দেবী শেঠির সঙ্গেও এ বিষয়ে কথা হয়েছে। ওর উপর যেন অহেতুক মানসিক চাপ না দেওয়া হয়। যেভাবেই হোক, সেটা যেন না হয়, দেখতে হবে।”