Categories
দেশ নতুন খবর বিশেষ লাইফ স্টাইল

করোনার প্রভাবে চাকরি হারিয়েছেন 12.2 কোটি ভারতবাসী, প্রকাশ্যে এল চাঞ্চল্যকর তথ্য..

করোনার প্রভাবে কাবু সারা বিশ্ব। মানুষের জীবনে প্রভাব ফেলেছে এই ক্ষুদ্র ভাইরাস। করোনা ইতিমধ্যে বিশ্বের 55.5 কোটি শ্রমিক এবং 20 কোটি ছাত্র- ছাত্রীদের উচ্চ শিক্ষার প্রভাব ফেলেছে এই COVID-19 । এক সমীক্ষাতে এমনই চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে এসেছে। ভারতে ইতিমধ্যেই বেকারের সংখ্যা পৌঁছেছে 27.1 শতাংশতে। এই সমীক্ষায় আরো একটি তথ্য উঠেছে যা হল, মার্চ এবং এপ্রিল মাসের মধ্যে মোট 12.2 কোটি ভারতবাসী তাদের চাকরি হারিয়েছে। করোনার প্রভাবে এপ্রিল মাসের মধ্যেই দেশের 12 কোটি মানুষ তাদের কাজ হারিয়েছেন।

সমীক্ষায় এমনই এক চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে এসেছে যা অনেক চিন্তার বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে বর্তমান প্রজন্মের পক্ষে। কাজ হারানো মানুষদের বেশিরভাগই দৈনিক মজুরি পান এমন শ্রমিকরা রয়েছেন। ছোট সংস্থায় কাজ করেন এমন মানুষেরাও কাজ হারিয়েছেন। এছাড়াও কাজ হারানোর মধ্যে রয়েছে হকার, হস্ত শিল্পী, ছোট ব্যবসায়ী, ফুটপাতের দোকানদার রাও রয়েছেন।
করোনার প্রকোপ থেকে বাঁচতে সরকারের কাছে লকডাউন ঘোষণা করা ছাড়া আর কোনো উপায় ছিল না।

আর এই লকডাউনের ফলেই প্রবল ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে দেশের গ্রামীণ এলাকাগুলি। এই সমস্ত গ্রামীণ এলাকাগুলিতে করোনা ভাইরাসে মারা যাওয়ার থেকে বেশি অনাহারে মারা গেছেন। এই সমীক্ষা আরেকটি তথ্য নিয়ে এসেছে যেটি হল, এই লকডাউনের ফলে 80 শতাংশেরও বেশি পরিবারের রোজকার পুরোপুরি থেমে গিয়েছে। তাই দুবেলা-দুমুঠো খাবার জোগাড় করা তাদের কাছে এখন বিরাট চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে।
আইপিই গ্লোবালের ম্যানেজিং ডিরেক্টর অশ্বজিং সিং জানিয়েছেন যে, কয়েক বছরের মধ্যে গরিব দূরীকরণের যে প্রচেষ্টা ভারত সরকার করছিল তাতে পুরোপুরি জল ঢেলে দিল এই লকডাউন।

ভারত এখন যে পরিস্থিতি রয়েছে তার থেকে বেরিয়ে আসা অত সহজ নয় বলেও জানিয়েছেন। করোনা সংক্রমণের জন্য 3.75 কোটি ছাত্র ক্যাম্পাস ছাড়তে বাধ্য হয়। রিপোর্টে জানা গিয়েছে এই সমস্ত ছাত্র- ছাত্রীদের মধ্যে অধিকাংশ ছাত্রছাত্রীই কোন স্কিল কোর্সের এর সঙ্গে যুক্ত। এর পরবর্তী সময়ে চাকরি এবং অর্থনীতি পুনরুদ্ধারের জন্য প্রতিষ্ঠানগুলিকে তাদের দক্ষতার বিকাশ ঘটানোর জন্য ব্যাপকভাবে পরিশ্রম করতে হবে। যাতে পরবর্তী সময়ে মানুষেরা সেখানে গিয়ে কাজের সঙ্গে যুক্ত হয়ে যেতে পারেন।

করোনার প্রভাব পড়েছে ডাটা ম্যানেজমেন্ট সেন্টার গুলোতেও। এই সমস্ত ক্ষেত্রগুলিতে ভারত অনেকটাই পিছিয়ে পড়েছে। খবর পাওয়া গেছে ভারতীয় সংস্থাগুলির এই সময়ের মধ্যে মোট 332 বিলিয়ন টাকা ক্ষতি হয়েছে। ভারতের স্থান এখন 58 তম।তবে ভারতের খারাপ সময় এক দিক থেকে এগিয়ে রয়েছে।ব্যবসায়িক প্রযুক্তিতে বর্তমানে অনেকটা এগিয়ে ভারত। বিশেষ করে প্রতিবেশী দেশ চীনের থেকে এগিয়ে রয়েছে ভারত। বিজনেস ডোমেইন এ ভারতের স্থান 35 তম। অপরদিকে চীন রয়েছে 45 নম্বরে। এমন কী টেকনোলজির দিক থেকেও ভারত এখন এগিয়ে চীনের থেকে। যেখানে টেকনোলজি দিক থেকে ভারতের স্থান চল্লিশতম সেখানে পাকিস্তানের স্থান 50।