দেশনতুন খবরবিশেষলাইফ স্টাইল

মহামারী করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে গোটা বিশ্বকে রাস্তা দেখাচ্ছে ভারত – অমিতাভ কান্ত

করোনা সংক্রমণ থেকে বাঁচতে সারাদেশে চলছে লকডাউন। দেশজুড়ে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে জারি রয়েছে তৃতীয় দফার লকডাউন। এর পাশাপাশি করোনা আক্রান্ত রোগীদের উপর নজর রাখার জন্য ভারত সরকারের তরফ থেকে ডেভলপ করা হয় এক অ্যাপ যার নাম আরোগ্য সেতু।আর এই মুহূর্তে ভারত সরকারের তৈরি করা এই আরোগ্য সেতু অ্যাপটি সবচেয়ে ডাউনলোড করা হেল্থকেয়ার অ্যাপ্লিকেশনের মধ্যে নাম লিখিয়েছে। আপনাদের সুবিধার্থে বলে রাখি এই অ্যাপ্লিকেশনটি বিশ্বের সবচেয়ে শীর্ষস্থানে থাকা দশটি অ্যাপ্লিকেশনের মধ্যে একটি।

আর একথা খোদ নীতি আয়োগের সিইও অমিতাভ কান্ত শুক্রবার দিন জানান। এই বিষয়ে তাকে একটা টুইট করতে দেখা যায় যেখানে তিনি লিখেন অবিশ্বাস্য! ভারত এখন গোটা বিশ্বকে নেতৃত্ব দিচ্ছে কীভাবে কোভিড-19 বিরুদ্ধে প্রযুক্তিকে কাজে লাগানো যায় তা নিয়ে। যার দরুন ভারত সরকারের তৈরি আরোগ্য সেতু অ্যাপটি এখন সবচেয়ে ডাউনলোড করা হেলথকেয়ার অ্যাপের মধ্যে একটি, আর এই অ্যাপটি 2020 সালের এপ্রিলের প্রথম মাসে গোটা বিশ্বে শীর্ষে থাকা সবচেয়ে দশটি ডাউনলোড করা অ্যাপ গুলির মধ্যে অন্যতম একটি যা এর আগে কখনো দেখা যায়নি।

গোটা ভারতের মানুষ এখন একত্রিত হয়েছে কোভিড-19 এর বিরুদ্ধে লড়াই করছে। শুধু তাই নয় আজ পর্যন্ত অর্থাৎ 9 মে পর্যন্ত এই আরোগ্য শুধু মোবাইল অ্যাপ্লিকেশনটি ডাউনলোড করেছে 9 কোটিরও বেশি মানুষ। তবে সরকারের তরফ থেকেও এটা বাধ্যতা মূলক করা হয়েছে সরকারি এবং বেসরকারি কর্মীরা যাতে এই অতি ভয়াবহ মহামারী করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে ব্যবহার করে। গত 14 ই এপ্রিল প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদী যখন দেশের জনগণের উদ্দেশ্যে ভাষণ দেন এবং তখন তিনি সকলকে এই অ্যাপটি ডাউনলোড করার জন্য আবেদন জানান।

তবে কীভাবে কাজ করে এই অ্যাপটি বলে রাখি এই অ্যাপটি ডাউনলোড করলে জনগণকে সচেতন করবে যদি তার কোন পরিচিত বা এলাকায় কোন ব্যক্তি করোনা পজিটিভ বের হয়ে থাকে। নীতি আয়োগ বা ইলেকট্রনিক্স ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রকের সক্রিয় অংশগ্রহণের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর অফিস থেকে তৈরি করা হয় একটি কমিটি যা এই অ্যাপটিতে ডেভলপ করেছে। এই মুহূর্তে গোটা বিশ্বে করোনা মহামারীর আকার ধারণ করছে,তাছাড়া ভারতবর্ষেও থাবা পড়েছে এই মরন ভাইরাস করোনার। যার জেরে প্রধানমন্ত্রী দেশজুড়ে যাতে এই করোনা সংক্রমণের হার আরও না বেড়ে যায় তার জন্য জারি করেছেন লকডাউন আর প্রথম 21 দিনের লকডাউন ঘোষণা করার পরও এই পরিস্থিতির মোকাবেলা করা যায়নি যার দরুন আবারো দুই দফায় এই লকডাউন এর মেয়াদকালকে বাড়ানো হয়েছে এবং আগামী 17 মে পর্যন্ত জারি করেছেন এবার তৃতীয় দফার লকডাউন।

Related Articles

Back to top button