প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনায় হাজার হাজার বাড়ি তৈরির অনুমোদন, কারা পাবেন এই ভর্তুকি! বিস্তারিত জানতে

‘প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা’-র আওতায় গ্রামীণ বাসস্থান নির্মাণ প্রকল্প রূপায়নের বিষয়টি অনুমোদিত হয় কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার বৈঠকে। প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনার অধীনে কেন্দ্রীয় সরকার শহরাঞ্চলে ১৬৪৮৮ টি বাড়ি তৈরীর প্রস্তাবে সবুজসংকেত দিয়েছে।মন্ত্রকের তরফ থেকে এ ব্যাপারে বিবৃতি জারি করা হয়েছে।

সাধারণভাবে পিএম আবাস যোজনার আওতায় কেন্দ্রীয় সরকার গৃহহীনদের বাড়ি তৈরিতে সাহায্য করে। এই স্কিমে যাঁরা ফ্ল্যাট কেনেন তাদের জন্য ভর্তুকি এমনকি যারা ঋণ নিয়ে ফ্ল্যাট কেনেন তাদের জন্য ও ভর্তুকি দেওয়া হবে। এমনটাই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে সরকারের কেন্দ্রীয় অনুমোদন এবং পর্যবেক্ষণ কমিটির ৫৪ তম সভায়।১৩ টি রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল এই বৈঠকে অংশ নিয়েছিল।

এবার চলুন জেনে নেওয়া যাক প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনায় আবেদনের পদ্ধতি একনজরে :-

১) এই যোজনায় আবেদনের জন্য কোন ব্যক্তি মোবাইলে সরাসরি অ্যাপ ডাউনলোড করে লগইন আইডি তৈরি করতে পারেন।

২) এরপর একটি মোবাইলে একটি ওয়ান টাইম পাসওয়ার্ড পাঠাবে।

৩) এরপর সেই পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করে প্রয়োজনীয় তথ্য দিতে হবে।

৪) বাড়ি পাওয়ার জন্য আবেদন এর পরে কেন্দ্রীয় সরকারের তরফ থেকে সুবিধাভোগীদের বেছে নেওয়া হবে।

৪) এরপর সেই তালিকা ওয়েবসাইটে দেওয়া হবে।

এবার চলুন দেখে নিই কারা এই প্রকল্পের সুযোগ পেতে পারেন :-

ই ডব্লিউ এস এ আবেদনের জন্য বার্ষিক পারিবারিক আয় ৩ লক্ষ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। এল আই জির বার্ষিক আয় ৩-৬ লক্ষ্য টাকা রাখা হয়েছে। ৬ লক্ষ্য থেকে ১২ লক্ষ টাকা পর্যন্ত বার্ষিক আয়ের লোকেরা এম আই জি ১-এর অধীনে পড়েন। এমনকি এই প্রকল্পের অধীনে ১২-১৮ লক্ষ টাকা পর্যন্ত আয়ের লোকেরাও পড়ে। এদেরকে রাখা হয়েছে এম আই জি – ২ এ। আবেদনকারীর নিজের কিংবা পরিবারের নামে দেশের কোন স্থানে কোন ও পাকা বাড়ি থাকা চলবে না।

২০১৫ র ১ লা জুন বর্তমান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি আবাস যোজনা চালু করেন। এই প্রকল্পে শহরের পাশাপাশি গ্রামেও আবাস তৈরীর সুযোগ রয়েছে। গ্রামাঞ্চলে পি এম এ ওয়াই জি প্রকল্পের অধীনে সমতল এলাকায় ১.২ লক্ষ টাকা এবং পার্বত্য অঞ্চল জম্মু- কাশ্মীর -লাদাখে ১.৩ লক্ষ টাকা অনুদান দেওয়া হয়েছে।

এ প্রকল্পের সুবিধা পাওয়ার আর্থিক মানদন্ড সম্পর্কে জেনে নিন :-

আগে পিএম আবাস যোজনার সুবিধা শুধুমাত্র গরিবদের জন্যই ছিল। কিন্তু এখন ঋণের পরিমাণ বাড়িয়ে এর সুবিধা মধ্যবিত্তদের জন্য ও দেওয়া হচ্ছে। আগে পিএম আবাস যোজনায় ঋণের পরিমাণ ছিল ৩-৬ লক্ষ টাকা পর্যন্ত। কিন্তু এখন তা বাড়িয়ে করা হয়েছে ৮ লক্ষ টাকা পর্যন্ত।