পরিচালক হিসাবে বাজিমাত SS Rajamouli-র,২১ বছরে একটাও সিনেমা হয়নি ফ্লপ

বর্তমানে হিন্দি দর্শকদের কাছে বলিউডের থেকেও দক্ষিণী সিনেমাগুলি বেশি আকর্ষণীয় হয়ে উঠছে, যার কারণে এক একটি দক্ষিণের সিনেমাগুলি পরপর ব্লকবাস্টার হচ্ছে। সম্প্রতি মুক্তি পেয়েছে “আর আর আর” ছবিটি এবং যেটি মাস্টার ব্লাস্টার একটি মুভি। এই ছবিটি মুক্তি পেয়েছে ২৫শে মার্চ।

ছবিটিতে জুনিয়র এনটিআর রামচরণ, অজয় দেবগন, আলিয়া ভাটের মতো অভিনেতা অভিনেত্রীরা অভিনয় করেছেন এবং এই ছবিটির পরিচালক হলেন এস এস রাজমৌলি।

সব সময় বিভিন্ন প্রতিবেদনে জনপ্রিয় অভিনেতা অভিনেত্রীদের সম্পর্কে আলোচনা করা হয়, তবে এই প্রতিবেদনে আজকে আলোচনা করা হবে পরিচালক এস এস রাজমৌলির ব্যাপারে। একটার পর একটা দর্শকদের ব্লকব্লাস্টার সিনেমা উপহার দিচ্ছেন এস এস রাজমৌলি। সম্প্রতি “আর আর আর” ছবিটি ব্লকবাস্টার হওয়ার পর লাইফ লাইটে এসে গিয়েছেন রাজমৌলি।

সিনেমা জগতে পরিচালক এস এস রাজমৌলির ২১ বছর কেটে গেছে এবং এই ২১ বছরে তিনি যে ক’টি ছবি দর্শকদের উপহার দিয়েছেন প্রত্যেকটাই সুপার ডুপার হিট হিসাবেই পরিচিতি লাভ করেছে।

তাঁর কাজের প্রতি নিপুণতা সেটা তাঁর উত্তরাধিকার সূত্রেই এসেছে। পরিচালক এস এস রাজমৌলির বাবা ছিলেন একজন বড় মাপের লেখক এবং পরিচালক এভি বিজয়েন্দ্র প্রসাদ যিনি অনেক কটি ব্লকবাস্টার ছবির গল্প লিখেছেন। যে গুলির মধ্যে হল মগধীর, মণিকর্ণিকা, বাহুবলী, বজরঙ্গি ভাইজান, থালাইভি প্রভৃতি।

পরিচালক রাজমৌলির প্রথম জীবনের ক্যারিয়ার শুরু হয়েছিল স্টুডেন্ট নম্বর ওয়ান ছবিটির মাধ্যমে, যেটা হয়েছিল সুপার ডুপার হিট। পরিচালক রাজামৌলির একটির পর একটি সুপার হিট ছবি দর্শকদের মন জিতে নিয়েছে, যে গুলি হলো ছত্রপতি, মগধীরা মরিয়দা রামান্না।

দক্ষিণের সিনেমা ইন্ডাস্ট্রিতে তিনি যেমন জনপ্রিয় তেমনি বলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে তিনি যথেষ্ট জনপ্রিয়। প্রচুর পরিশ্রম, তাঁর বুদ্ধি, তাঁর দূরদৃষ্টি সমস্ত কিছুর জন্যই আজ তাঁর সফলতা উচ্চপর্যায়ে।