কেন্দ্রের তরফে কেন প্রত্যাহার করা হল কৃষি আইন বড় বয়ান দিয়ে বুঝিয়ে দিলেন অনুব্রত মণ্ডল

আমরা সকলেই জানি গতকাল অর্থাৎ গুরু নানকের জন্ম দিনের দিন দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী সকাল ন’টায় জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণ রাখতে গিয়ে ৩ কৃষি আইন প্রত্যাহার করার সিদ্ধান্ত নেন। প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদির এই সিদ্ধান্ত রীতিমতো ব্রেকিং নিউজ হয়ে যায় কিছুক্ষণের মধ্যেই। স্বাভাবিকভাবেই এই ঘোষণা শোনার পর থেকেই খুশির হাওয়া বয়ে যায় কৃষকদের মধ্যে। কিন্তু একই সাথে এই আইন কেন প্রত্যাহার করার হলো, তা নিয়ে শুরু হয়ে যায় চুলচেরা বিশ্লেষণ।

কৃষক আন্দোলনের প্রধান নেতা ইতিমধ্যেই জানিয়ে দিয়েছেন, আইন প্রত্যাহার করার কথা ঘোষণা করা হলেও এখনই আন্দোলন প্রত্যাহার করা যাবে না। অধিবেশনে এই কথা পেশ করা হলে তবে প্রত্যাহার করা হবে আন্দোলন। এবার এই নিয়ে মুখ খুললেন বীরভূম জেলা তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল। কেন কৃষি আইন প্রত্যাহার করা হল, সে বিষয়ে তিনি জানালেন বেশ কিছু কথা।

 

অনুব্রত মণ্ডল এইদিন সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে বলেন,”এই আইন কেন প্রত্যাহার করা হলে জানেন? সামনে ভোট রয়েছে। প্রধানমন্ত্রী ইতিমধ্যেই বেশ ভয় পেয়ে গেছেন। ত্রিপুরা এবং আগরতলায় তৃণমূল কংগ্রেস জিতে যাবে এই ভয় পেয়ে তিনি আইন প্রত্যাহার করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। কৃষকদের আন্দোলন দেখে রীতিমত ভয় পেয়ে তিনি এই সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হলেন”।

প্রধানমন্ত্রী কটাক্ষ করে অনুব্রত মণ্ডল বলেন, “কেন প্রাইম মিনিস্টার এই আইন তুলে নিলেন? উনি তো বলেছিলেন আমি কিছুতেই এই আইন তুলবো না। এখন সবকিছু বুঝতে পারছেন। বিজেপির অবস্থা একেবারেই ভালো নয়। বিজেপির আত্মবিশ্বাস তলানিতে এসে ঠেকেছে। কৃষি আইন কেন, এখন দেশের অনেক কিছুই পাল্টে যাবে”।

এর সঙ্গে তিনি আরো বলেন,”এই আইন আনার পর প্রায় ৬০০ জন কৃষকের মৃত্যু হয়েছে। এই আইন যখন তুলে দেবার ছিল, তাহলে কেন এই আইন আনা হয়েছিল। সামনেই উত্তর প্রদেশ এবং পাঞ্জাবের ভোট, তাই নিজের অবস্থা বুঝতে পেরে এখন থেকে ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছেন সকলের কাছ থেকে”