প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনায় যোগ হল আরো একটি নতুন সুবিধা! একদম করবেন না হাতছাড়া

প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা ২০২১ সালের সুবিধা নেওয়া লোকেদের জন্য সুখবর। শিল্প সংস্থা সিআইআই সংস্থা কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে আবার প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা চালু করার জন্য দাবি করেছে। সিআইআই নামক সংস্থা দাবি করে জানিয়েছে যে, এই প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা তে জীবন বীমার মতো সুবিধা যেনো বাধ্যতামূলক করা হয়।প্রকৃত ভাবে দেখতে গেলে যা করতে বলা হচ্ছে সেটি হলো, কেন্দ্রীয় সরকার ভারতের প্রত্যেক নাগরিক কে প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা নামক প্রকল্পের অন্তর্ভুক্ত প্রত্যেক দরকারি ব্যাক্তি কে বাড়ি দেওয়ার একটি চিন্তাভাবনা করেছে।

এই যোজনা এর অন্তর্ভুক্ত, কোনো ব্যাক্তি মারা গেলে অথবা প্রতিবন্ধী হয়ে গেলে, সেই বাড়ির বাস্তবায়ন করার জন্য যে ঋণ প্রদান করা হয়েছে তার সাথে জীবন বীমার মতো সুবিধা প্রদান করার মতো দাবিও জানানো হয় ভারতীয় কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে। এই যে প্রধানমন্ত্রীর আবাস যোজনা নামক প্রকল্পটি কেন্দ্রীয় সরকার এর কাছে একটি অন্যতম প্রধান প্রকল্প। এই প্রকল্পের অধীনে, ভারতীয় কেন্দ্রীয় সরকার পরের বছর ২০২২ সালের মধ্যে, মনে দেশ স্বাধীন হওয়ার ৭৫ বছর পূর্ণ হওয়ার মধ্যে, সমস্ত ব্যাক্তি কে একটি করে আবাসন প্রদান করার লক্ষ্য নির্ধারণ করেছে।

এই লক্ষ্যে পৌঁছানোর জন্য, সিআইআই সংস্থা ভারতীয় কেন্দ্রীয় সরকারের দরজায় দাড়িয়ে দাবি করে জানিয়েছে, যে এই হাউজিং স্কিমে অন্তর্ভুক্ত সমস্ত সুবিধা ভোগীদের জন্য জীবন বীমার সুবিধা এর আয়োজন করতে হবে।এবার ভারতীয় কেন্দ্রীয় সরকার যদি সিআইআই সংস্থা এর এই দাবি মেনে নেয় ও তার সাথে প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা ২০২১ তালিকা এর সাথে জীবন বীমা প্রদান করার পরিকল্পনা এর সাথে আবার শুরু করা হয়, তাহলে এই প্রকল্পটি সমস্ত দেশবাসীর জন্য একটি বড় ঘোষণা হয়ে দাঁড়াবে। এখন এই সময় পর্যন্ত এই প্রকল্পে ঋণ গ্রহণকারীদের জন্য কোনও রকম প্রকারের কভারের সুবিধা দেওয়া হয়নি।

Advertisements

ঋণ পরিমাণের সঙ্গে যুক্ত বীমা দেওয়ার কোনো চিন্তাভাবনা নেই সরকারের কাছে। সিআইআই সংস্থা জানিয়েছে যদি পিএম আবাস যোজনা ঋণ পরিমাণের সঙ্গে জীবন বীমার মতো সুবিধা পান, তাহলে এই প্রতিকূল পরিস্থিতি এর মধ্যে গৃহিণী খরচও চলতে থাকবে ও তার সাথে ঘর নির্মাণের চলতে থাকা সেই কাজ ও বন্ধ হবে না।

Advertisements

সিআইআই সংস্থা এর ডিরেক্টর জেনারেল শ্রী চন্দ্রজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, “প্রধানমন্ত্রী আবার যোজনা পুনরায় চালু করার প্রয়োজন রয়েছে যার মাধ্যমে ক্রেডিট লিঙ্কড ইন্স্যুরেন্স বা মূলত জীবন বীমার সুবিধা প্রত্যেক ঋণগ্রহীতাকে দেওয়া যেতে পারে। এটি ‘সবার জন্য আবাস’ এর লক্ষ্যে কোনও সমস্যা সৃষ্টি করবে না। ঋণগ্রহীতার মৃত্যু হলে অথবা প্রতিবন্ধী হয়ে গেলেও বাড়ির নির্মাণ বন্ধ হবে না। এমন কিছু ব্যবস্থা থাকা উচিত যাতে পরিবারগুলি ঋণ নয় ঘর পায়। জীবন বীমা এক্ষেত্রে বড় ভূমিকা রাখতে পারে। দেশে দ্রুত উন্নয়নের জন্য, সস্তা বাড়ি সরবরাহ করা সবচেয়ে বড় প্রয়োজন। প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনার আওতায়, ঋণগ্রহীতা মারা গেলে, বাড়ির নির্মাণ বন্ধ হয়ে যাবে এবং ঋণের প্রভাব ভিন্ন হবে এবং পরিবারও সমস্যায় পড়বে।”

কোভিড মহামারি চলাকালীন করোনার দাপটে এই সময় মানুষের দৈনন্দিন জীবনে তার মারাত্মক প্রভাব ফেলেছে। করোনা এর দ্বিতীয় ঢেউয়ে মৃত্যুর হার দ্রুত বৃদ্ধি পাওয়ার কারণে, এমন পরিস্থিতি এর মধ্যে সমস্ত ব্যাক্তির এক আর্থিক সাহায্য খুবই দরকার। আর্থিক দিকে সমস্যায় থাকা পরিবার প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা এর সাহায্যে জীবন বীমার ব্যবহার করে কিছু আর্থিক সুবিধা পেতে পারে।