পিছিয়ে গেল অমিত শাহ এর বাংলা সফর কিন্তু কেন?

জানুয়ারির মাঝামাঝিতেই বাংলায় আসার পরিকল্পনা ছিল কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহ’র। কিন্তু হঠাত অমিত শাহ এর সফরসূচি পরিবর্তন হয়। জানুয়ারি মাসের একেবারে শেষের দিকে অমিত শাহ বাংলায় আসছেন। বাংলা সফরে আসার দিনক্ষণ পিছোনোর কারণ দুটি৷

১. মাসের প্রথম দিকে আবারও বাংলায় আসছেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা। জনসভা ছাড়াও করবেন একটি রোড শো।
২. ২৩ জানুয়ারি নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসুর জন্মদিনে রাজ্যে আসছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তাই অমিত শাহের বাংলা সফরসূচি পিছিয়েছে।

 

অমিত শাহ আসছেন ৩০ জানুয়ারি। প্রথমদিন বনগাঁয় একটি জনসভা করবেন এবং সেখানেই দুপুরে খাবেন৷ এরপর বনগাঁর বিজেপি সাংসদ শান্তনু ঠাকুরের সঙ্গে মতুয়াদের দাবি-দাওয়ার বিষয় আলোচনা করবেন। ৩১ জানুয়ারি হাওড়ায় জনসভা করবেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহ।

রাজ্য বিজেপির নেতাদের দাবি, মেদিনীপুর কলেজ মাঠের মতই হবে হাওড়ায় অমিত শাহের জনসভা। মেদিনীপুরে যেমন শুভেন্দু অধিকারী সহ বহু তৃণমূল নেতা, বিধায়ক ও সাংসদ বিজেপিতে যোগ দিয়েছিলেন, হাওড়ায় সেই ঘটনারই পুনরাবৃত্তি হতে চলেছে।

ব্যাঙ্কের সুরক্ষার অভাবে টাকা জালিয়াতি হলে গ্রাহককে ক্ষতিপূরণ দিতে হবে, বড়ো সিদ্ধান্ত জাতীয় গ্রাহক কমিশনের

হাওড়ায় তৃণমূলের তিন নেতাকে নিয়ে এখন রাজ্য রাজনীতি তোলপাড়। রাজ্যের বনমন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। তৃণমূল বিধায়ক বৈশালী ডালমিয়া এবং লক্ষ্মীরতন শুক্লাকে ঘিরে সম্প্রতি রাজ্য রাজনীতিতে জল্পনা তুঙ্গে ।

বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ লক্ষ্মীরতন শুক্লা প্রসঙ্গে বলেন, ‘কোনও ভালো মানুষই আর তৃণমূল করতে চাইছে না।” সেইসঙ্গে দিলীপ ঘোষ বুঝিয়ে দেন যে, তৃণমূলের প্রতি যারা বিরক্ত হয়ে গেছেন তাদের জন্য বিজেপির দরজা খোলা আছে।


জানা যাচ্ছে, অমিত শাহের সভাকে আরও বেশি জাঁকজমক পূর্ণ করতে বেশি সংখ্যক তৃণমূল নেতাদের সাথে যোগাযোগ চলছে বিজেপির।