বড় খবর:- ইরাকে এয়ার স্ট্রাইক করলো আমেরিকার এয়ারফোর্স! ফেলানো হলো 36 হাজার কেজি বোমা।

ইরাক থেকে এই মুহূর্তে সবচেয়ে বড় খবর সবার সামনে বেরিয়ে আসছে। আমেরিকা এবার ইরাকের  আইএসআইএস জঙ্গি ঘাঁটিতে এয়ার স্ট্রাইক করেছে।
খবর সূত্রে জানতে পারা গেছে, সন্ত্রাসী সংগঠন ইসলামিক স্টেট এর ঘাঁটিতে বিমান হামলার সময় মার্কিন সেনাবাহিনী 36 হাজার কেজি বোমা ফেলেছে।আর এই সমস্ত বোমা-গুলি কে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র তাদের আধুনিক বিমান F-35 এবং F-15 এর সাহায্য নিয়ে ফেলেছে। এখনো পর্যন্ত পাওয়া খবর থেকে জানা গেছে সেখানে বলা হচ্ছে আমেরিকা এই বোমা গুলি তিগ্রি নদীর দ্বীপ ফেলেছে যেখানে আতঙ্কবাদীরা ঘাঁটি জমিয়ে বসে ছিল।

মার্কিন সেনাবাহিনী তরফ থেকে জানানো যাচ্ছে যে আইএসের বিরুদ্ধে দমন কার্য তীব্র করতেই এমন পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। তবে শুধু তাই নয় এক্ষেত্রে ইরাকে সৈনাবাহিনী ও আমেরিকার সহায়তা করেছে।প্রাপ্ত খবর থেকে যা জানা যাচ্ছে, সেখানে বলা হচ্ছে এই অভিযানের মূল উদ্দেশ্য ছিল সন্ত্রাসী সংগঠন ইসলামিক স্টেটের ঘাঁটিগুলি পুরোপুরিভাবে ধ্বংস করে দেয়া।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে জানানো হয়েছিল যে ইরাকের মোসুলের সিরিয়া ও জাজিরা রেজিস্তান অঞ্চল ছাড়াও আইএসআইএসের জঙ্গিরা কিরকুক ও মাখমুরে তাদের সন্ত্রাসীদের আস্তানা তৈরি করেছে। যা কানসু দ্বীপ, কায়ারা মার্কিন অপারেটিং বেসের কাছে অবস্থিত।আর সেই কানুস দ্বীপে বড় রকম অভিযান চালিয়েছে মার্কিন সেনাবাহিনী। এখনো পর্যন্ত প্রাপ্ত খবর থেকে এটাও জানতে পারবে যে এই হামলার দরুন আপাতত 25 জন আতংবাদি কে শেষ করে দেওয়া হয়েছে যদিও জানানো হয়েছে আতংবাদি মৃত্যুর সংখ্যা আরো বাড়তে পারে পরবর্তীকালে।

তবে আপনাদের আরো বলে রাখি যে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও ইরাক এর মধ্যে হওয়া চুক্তির পর থেকে এটি দ্বিতীয়বার হবে যেখানে দুই সেনাবাহিনী এত বড় আক্রমণ চালিয়েছে। তাৎপর্যপূর্ণভাবে, ইরাকি প্রধানমন্ত্রী হায়দার- আল- আবাদি 2017 সালে আইএস কে পুরোপুরি নির্মূল করেছে বলে দাবি করেছিলেন।তবে তা সফল করতে পারেনি তাই মার্কিন সেনা এই পদক্ষেপ নিয়েছে।গোয়েন্দা সূত্রে পাওয়া খবর থেকে জানতে পারা গিয়েছিল এই অঞ্চলে আইএস থেকে প্রচুর পরিমাণে স্লিপার সেল তৈরি করা হয়।

এক্ষেত্রে ইরাকের প্রধানমন্ত্রী মনে করেছিলেন যে আইএস পুরোপুরি ধ্বংস হয়ে গেছে তবে এই স্লিপার সেলগুলি সন্ত্রাসী সংগঠন ইসলামিক স্টেটকে পুনর্জীবিত করেছিল। তবে উল্লেখযোগ্য বিষয় হল যে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এই প্রথমবারের মতো আইএসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের জন্য F-35 বিমানটিকে ব্যবহার করেছে। আপনাদের আরো বলে রাখি, এই F-35 বিমান টি 8,100 কেজি ওজন বহন করতে সক্ষম এবং F-15 বিমানটি 13,380 কেজি অস্ত্র গ্রহণ করতে সক্ষম। তবে এর আগে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র গত বছরের সেপ্টেম্বর মাসে আফগানিস্তানে তালেবানের বিরুদ্ধে এক অভিযানে F-35 যুদ্ধবিমানটিকে ব্যবহার করেছিলেন।

Related Articles

Close