বড় খবর- মালয়েশিয়া সমুদ্রপথে চীনের সীমায় পৌঁছালো আমেরিকার যুদ্ধ জাহাজ, করা হবে চীনের উপর শক্তি প্রদর্শন

আমেরিকা হল বিশ্বের এমন একটি দেশ যার উপর কখনো কেউ হামলা করলে, রেহাই পায় না। এর আগে 9/11 সে আমেরিকায় হামলা হয়েছিল যেখানে আমেরিকার তিন হাজার মানুষ মারা গিয়েছিল তারপর থেকেই আমেরিকা আফগানিস্তান সহ বিভিন্ন আশেপাশে এলাকা গুলিতে তাদের যে ফোর্স সেগুলিকে আরও বেশি অ্যাক্টিভ করেছিল। আর এখন চায়না থেকে সৃষ্টি হওয়া মরন ভাইরাস COVID-19 এর জেরে আমেরিকাতে প্রাণ হারিয়েছে প্রায় 50 হাজার মানুষ আর এখনও পর্যন্ত আমেরিকাতে এই ভাইরাসের দরুন আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়িয়ে গিয়েছে 7 লাখের ও বেশি।

যার ফলে ইতিমধ্যে চায়না সাথে আমেরিকার সম্পর্কের বিশাল ক্ষোভ পড়েছে। যেহেতু ইতিমধ্যে এই মরণ ভাইরাসের জেরে আমেরিকার বহু মানুষের প্রাণ দিয়েছে সেহেতু আমেরিকা সরকারের ওপর এই বিষয়ে একপ্রকার চাপ সৃষ্টি হয়েছে। শুধু তাই নয় এই ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা দিন দিন বাড়ার পাশাপাশি আমেরিকা এখন আর্থিক দিক থেকে দিন দিন অনেক ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছে। অন্যদিকে এই বিষয়ে আমেরিকার মানুষেরা নিজেদের মতামত রাখতে গিয়ে বলেছেন এটা একটা বিশ্ব যুদ্ধের চেয়েও বড় আক্রমণ, এমন কী বিশ্বযুদ্ধেও এত লোকজন মারা যায় না তাই চীনের ওপর কড়া ব্যবস্থা নেওয়ার প্রয়োজন আছে।

তবে এরই মধ্যে আরো একটি তথ্য প্রকাশ করে আসছে যেখানে গোটা বিশ্বের চিন্তা ধারাকে বদলে দিতে পারে এ তথ্য প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী জানতে পারা যাচ্ছে ইতিমধ্যে ডোনাল্ড ট্রাম্প তাদের মার্কিন নৌসেনা কে চিনে দিকে মুড়ে দিয়েছে। এমন কী মার্কিন নৌসেনার বড় বড় যুদ্ধ জাহাজগুলি মালয়েশিয়ার রাস্তা দিয়ে চীনের সীমান্তে প্রবেশ করিয়ে দেওয়া হয়েছে। শুধু তাই নয় প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী জানতে পারা যাচ্ছে এই যে যুদ্ধ জাহাজগুলি রয়েছে সেগুলির মধ্যে রয়েছে পারমাণবিক অস্ত্র যুক্ত। খবর পাওয়া যাচ্ছে মার্কিন প্রেসিডেন্ট একটা এয়ারক্রাফট ক্যারিয়ার চীনের দিকে মুড়ে দিয়েছে যেখানে রয়েছে 50 টিরও বেশি 5 th জেনারেশন ফাইটার জেট।

https://twitter.com/utsavbains/status/1252982066876047360?s=20

যদিও এই বিষয় নিয়ে বিশেষজ্ঞরা তাদের মতামত রাখতে গিয়ে জানিয়েছেন এমন পরিস্থিতিতে পরমাণু-যুদ্ধ হওয়ার সম্ভাবনা নেই তবে আমেরিকা নিজের শক্তি প্রদর্শন করতে পারে চীনের ওপর এমনটাই আশঙ্কা করা যাচ্ছে। যেহেতু এই মুহূর্তে আমেরিকা আক্রমণাত্মক মুডে রয়েছে, যেহেতু তারা যদি চীনের উপর আক্রমণ করে তাহলে পরিস্থিতি অন্য দিকে যেতে পারে।এর পাশাপাশি বিশেষজ্ঞদের দাবি যেহেতু আমেরিকাতে কিছু সময় পরেই রয়েছে নির্বাচন তাই সে ক্ষেত্রে ডোনাল্ড টাম্প নিজেকে বিশ্বের শক্তিশালী নেতা দেখাতে শক্তি প্রয়োগ করতে পারে চীনের ওপর।তাছাড়া এই মার্কিন প্রেসিডেন্ট নিজের শক্তিশালী ছবি ধরে রাখতে যেকোনো পর্যায়ে যেতে পারে বল আশঙ্কা করা যাচ্ছে।