এই হ্যান্ড স্যানিটাইজারের বিপদের কথাও মাথায় রাখবেন, নাহলে এর পরিনাম ভুগতে…

COVID-19 এর সংক্রমণ থেকে বাঁচতে হ্যান্ড স্যানিটাইজার একটি গুরুত্বপূর্ণ অস্ত্র। বিশেষজ্ঞরা  পরামর্শ দিচ্ছেন হ্যান্ড স্যানিটাইজার দিয়ে বারবার হাত ধোয়ার জন্য। ফলে হ্যান্ড স্যানিটাইজার এর ব্যবহার ব্যাপকভাবে বেড়েছে আগের তুলনায়।আবার অনেকেই জানেন না এই হ্যান্ড স্যানিটাইজার একটি বিষাক্ত রাসায়নিক পদার্থ। হাতে লাগানো পর্যন্ত এটি ঠিক আছে কিন্তু যদি কেউ ভুলবশত এটাকে খেয়ে নেয় তাহলে তার মারাত্মক ক্ষতি হবে। যদি কেউ ভুলবশত বেশি শুকে নেয় তাহলে সারা জীবনের জন্য পঙ্গু,অন্ধ এমন কী  মৃত্যু পর্যন্ত ঘটতে পারে।

তাই এটি যখন ব্যবহার করবেন তখন খুবই সাবধানে ব্যবহার করবেন। এই হ্যান্ড স্যানিটাইজার কী কী দিয়ে তৈরি হয় তা আমরা নিচে আলোচনা করলাম – 70-75% Ethanol দেওয়া থাকে হ্যান্ড স্যানিটাইজারে। এই 70 থেকে 75 শতাংশ কোনো মুখের কথা নয়। যারা নিয়মিত মদ্যপান করেন তারা ছাড়া অন্য কেউ এটি যদি জল ছাড়া খেয়ে নেয় তাহলে মারাত্মক বিপদ হবে তার। শিশুদের ক্ষেত্রে আরো বেশি বিপদজনক এটি। যদিও Ethanol পাওয়া কতটা সহজ নয় এবং এর দাম অনেক বেশি।
এছাড়াও Ethanol এর পাশে আরও একটি যৌগ থাকে যেটি হল Methanol । এটি খুব সহজেই পাওয়া যাবে। এটি কাঠের দোকানে বা রং পালিশ এর দোকানে খুবই ব্যবহৃত হয়। Ethanol এর থেকেও শক্তিশালী জীবাণুনাশক হিসেবে এটি ব্যবহার করা হয়। তাই এই জীবাণুনাশক হাতে পড়লেই হাতটি ঠান্ডা হয়ে যায়। এর দাম Ethanol এর থেকে অনেক কম। তাই অনেক সময় হ্যান্ড স্যানিটাইজারে এই জীবাণুনাশকটি ব্যবহার করা হয়। এই Methanol এতটাই বিষাক্ত যে অল্প পরিমাণ যদি কেউ খেয়ে নেয় তাহলে মৃত্যু অবধারিত।

বড়োরা হয়তো জানবে যে টি বিষাক্ত তাই মুখে নেবেন না কিন্তু বাচ্চারা আর সেই জিনিসটা তো জানে না। তাই এই হ্যান্ড স্যানিটাইজার বাচ্চাদের নাগালের দূরে রাখুন। আর বাচ্চাদের হ্যান্ড স্যানিটাইজার দেওয়ার পর যতক্ষণ না তার পুরোপুরি শুকোচ্ছে হাতটি ধরে রাখুন। যাতে লাগানোর সঙ্গে সঙ্গেই বাচ্চারা হাতটি মুখে না নিয়ে নেয়। শুধুমাত্র হ্যান্ড স্যানিটাইজারের ক্ষেত্রে নয় Ethanol এবং Methanol এর ব্যবহার পেট্রোলের সাথে মেশানো কাজে ব্যবহৃত হয়। যখন পেট্রোলের দাম আকাশছোঁয়া হয়ে গিয়েছিল তখন পেট্রোলের দাম এর উপর লাগাম আনতে এবং বৈদেশিক মুদ্রা কে বাঁচাতে পেট্রোলের সাথে 10-12% শতাংশ হারে Ethanol মেশানো হয়। এরপর অনেকেই গিয়েছিল আরো অনেক বেশি হারে Ethanol বা Methanol মেশানোর জন্য। কারণ পেট্রোলের সাথে সর্বোচ্চ 35% শতাংশ হারে Ethanol বা Methanol মেশানো যায়। কিন্তু সরকার তা মানতে রাজি হননি কারণ যদি বেশি শতাংশ হারে মেশানো হয় তাহলে পেট্রোল পাম্পের কর্মীদের বিপদজনক হয়ে দাঁড়াতে পারে। কিন্তু পরে বহু পাম্পে এই যৌগগুলি মেশানো হতো পরে তা অনেকবার ধরাও পড়েছে।