শুধু ভরতে হবে এই ফর্ম ব্যাস তারপরই Income Tax Return দেওয়ার হাত থেকে মুক্তি পাবেন বয়স্করা

সম্প্রতি সিনিয়র সিটিজেনদের জন্য ইনকাম ট্যাক্স রিটার্ন জমা দেওয়ার জন্য নতুন নিয়ম চালু হল । ৭৫ ঊর্ধে বয়স্কদের আর কষ্ট করে ট্যাক্স রিটার্ন জমা দিতে হবে না এমনটাই ঘোষণা করেছেন অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন । যদিও আগের বাজেটে এরকম কথা শোনা যাচ্ছিল। সম্প্রতি এই বিষয় নিয়ে বিস্তারিত নিয়ম জানানো আয়কর বিভাগ । এই ট্যাক্সের জমা দেওয়ার থেকে ছাড় পাওয়ার জন্য বয়স্কদের ফিল আপ করতে হবে একটি বিশেষ ধরনের ফর্ম। তবে এই সুবিধা শুধুমাত্র 75 উদ্ধেরাই পেয়ে থাকবেন বলে জানা যাচ্ছে।

আয়কর বিভাগে তরফ থেকে জানানো হচ্ছে এই বিশেষ সুবিধা আনা হয়েছে শুধুমাত্র বয়স্করা যাতে ঝঞ্ঝাট মুক্ত হন।৭৫ বয়সের উপর ব্যক্তিদের ক্ষেত্রে এই নিয়ম চালু হচ্ছে । সে ক্ষেত্রে আয়কর বিভাগ থেকে নিয়ম জারি করা হয়েছে যে ,এই বয়সে ব্যক্তিদের যদি পেনশন এবং ফিক্স ডিপোজিট অ্যাকাউন্ট এক ব্যাংকে হয় সে ক্ষেত্রে রিটার্ন জমা দেওয়ার জন্য কোন আবেদন করতে হবে না। তবে সে ক্ষেত্রে শর্ত হল যেখানে পেনশন অ্যাকাউন্ট আছে সেই অ্যাকাউন্টেই সুদ জামা পরতে হবে।

আগের বাজেটই এই ব্যাপারে বলা হলেও এবার তা আনুষ্ঠানিকভাবে নিয়ম জারি করা হচ্ছে আয়কর বিভাগ এর তরফ থেকে । পেনশন গ্রাহকদের একটি ডিক্লারেশন ফর্ম ফিলাপ করে ব্যাংকে জমা দিতে হবে। এই ফর্ম ফিল আপ করলে সরাসরি ট্যাক্স কেটে নেওয়া হবে ওই ব্যক্তির আ্যকাউন্ট থেকে। সেই জন্য ওই ব্যক্তিকে আলাদা করে সরকারি তহবিল এগিয়ে ট্যাক্স জমা দেওয়ার কোন প্রয়োজন পড়বে না। ফলে যারা বয়স্ক ব্যক্তি তাদের অনেক সুবিধা হবে।

এক কাজের জন্য তাঁদের আর বেশি দৌড়াদৌড়ি করার কোন প্রয়োজন পড়বে না । ব্যাংকের মাধ্যমে সরাসরি এই কাজটি হয়ে যাবে। এই সমগ্র পদ্ধতিটির জন্য গ্রাহকদের একটি ফর্ম ফিলআপ করতে হবে। 12BBA ফর্ম পূরণ না করলে গ্রাহকরা এই সুবিধা পাবেন না ।এছাড়া এখন অধিকাংশ ব্যাংকই বয়স্ক ব্যক্তিদের জন্য আলাদা কাউন্টার খোলা হচ্ছে । বেসরকারি ব্যাঙ্কগুলি বাড়িতে এসেও পরিষেবা দিয়ে থাকে বয়স্ক ব্যক্তিদের ক্ষেত্রে ।

সুতরাং এবার থেকে সিনিয়র সিটিজেনদের আয়কর জমা দেওয়ার ক্ষেত্রে জটিল পদ্ধতি মধ্য দিয়ে আর যেতে হচ্ছে না ।পেনশন একাউন্ট এবং ফিক্সড ডিপোজিট অ্যাকাউন্ট একই ব্যাংকে থাকলে ঘরে বসেই তাঁরা নির্দিষ্ট সময়ে ট্যাক্স জমা দিতে পারবেন। আগের বাজেটে প্রবীণ নাগরিকদের জন্য যেই সুবিধা দেওয়ার কথা অর্থমন্ত্রক দিয়েছিলেন তা যথার্থই পূরণ করা হলো।