এবার থেকে এই জিনিসটির সঙ্গে ঢুকতে পারবেন না কোন রেলস্টেশনে, ঢুকলেই হতে পারে..

পরিবেশ মানবজীবনের সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে জড়িত। আমরা সবাই পরিবেশকে কেন্দ্র করে বেঁচে থাকি এবং নানাভাবে পরিবেশ দূষিত করি। বস্তুত আমরা প্রতিনিয়ত পরিবেশ দূষণ করে চলছি, আর ধ্বংস করছি প্রকৃতির প্রাণ বৈচিত্র্য। সাম্প্রতিককালে পরিবেশ দূষণের একটি প্রধান কারণ হল প্লাস্টিক বর্জ্য।আমরা প্রতিনিয়ত প্লাস্টিক ব্যবহার করছি এবং পরিবেশকে দূষিত করছি। সত্য বলতে কী, প্লাস্টিক দ্রব্যের ব্যবহার আমাদের দৈনন্দিন কাজে এতটাই বৃদ্ধি পেয়েছে যে, বেশিরভাগ মানুষের কাছেই প্লাস্টিক দ্রব্য ছাড়া জীবনযাপন প্রায় অসম্ভব মনে হতে পারে।

তবে এবার ভারতীয় রেলওয়ে তরফ থেকে স্টেশনকে পরিষ্কার- পরিচ্ছন্ন রাখতে নতুন নিয়ম চালু করা হবে। এবার থেকে দেশের সমস্ত স্টেশনের প্লাস্টিক এবং প্লাস্টিক জাতীয় দ্রব্য ব্যবহারে করা হবে নতুন নিয়ম। খবর সূত্রে জানতে পারা গেছে এই নিয়মটি আগামী 2 অক্টোবর থেকে জারি করা হবে। যেমন কি আমরা সকলেই জানি প্লাস্টিকের মাধ্যমে ছড়াচ্ছে মারাত্মক বিপদ ক্ষতি হচ্ছে পরিবেশের, কমে আসছে সভ্যতার আয়ু।

তবে এবার স্টেশন ও ট্রেন কে পরিষ্কার রাখতে কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে ভারতীয় রেলের তরফ থেকে। হাওড়া সহ সব রেলস্টেশনের নিষিদ্ধ করা হচ্ছে প্লাস্টিককে।এবার থেকে রেল স্টেশনে ব্যবহার করা যাবে না সিঙ্গল ইউজ প্লাস্টিক।শুধু হাওড়া নয় হাওড়া সহ রাজ্যের অন্যান্য সব স্টেশনেও জারি করা হবে এই নির্দেশিকা কে। যাত্রীদের পরিবেশ বিষয়ক সচেতন করতে নেওয়া হবে এই কড়া পদক্ষেপ, সাথে সাথে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন থাকবে স্টেশনসহ ট্রেন।

আর এই নিয়ম একবার লাগু হয়ে যাওয়ার পর প্লাস্টিক ক্যারি ব্যাগ নিয়ে যদি কেউ স্টেশনে ঢুকে থাকে তাহলে তাকে দিতে হবে মোটা টাকার জরিমানা। তবে শুধু প্লাস্টিকের ক্যারি ব্যাগ নয় এবার ব্যবহার করা যাবে না প্লাস্টিকের থালা কাপ, চামচ। এমনকি খাবার প্যাকেজিং এর জন্য প্লাস্টিক ব্যবহার বন্ধ করা হবে বলে জানানো হয়েছে। একথা স্পষ্ট জানিয়ে দিলেন পূর্ব রেলের জিএম প্রবোধ চন্দ্র শর্মা।তবে আরো আপনাদের বলে রাখি ,রেলসূত্রে পাওয়া খবর অনুযায়ী জানতে পারা গেছে যে প্রতিদিন স্টেশনে চট্টর থেকে প্রায় 7000 থেকে 8000 প্লাস্টিক বর্জ্য পদার্থ সাফ করা হয়।

Related Articles

Close