ভারতীয়দের কাছে আমরা ঋণী, ওরাই বিশ্বকে গুনতে শিখিয়েছে : মহান বিজ্ঞানী- আলবার্ট আইনস্টাইন

হিন্দু শাস্ত্র মতে মানুষের দেহ হল বহু এনার্জি চ্যানেল এর সমষ্টি। এই হিন্দু শাস্ত্র বহু প্রাচীন শাস্ত্র হিসেবে পরিচিত। বহুকাল আগের মুনিঋষি, সাধু-সন্ন্যাসী’রা, তাদের সাধনার দ্বারা ভারতকে সমৃদ্ধ করে আসছে। এখনো পর্যন্ত এই রীতি চলছে। হাজার হাজার বছরের উত্থান- পতনের মধ্য দিয়ে বহু সভ্যতা এসেছে গেছে কিন্তু সনাতন হিন্দুধর্ম এখনো পর্যন্ত বহু বাধা বিপত্তিকে অতিক্রম করে টিকে রয়েছে। আর এখনও পর্যন্ত সনাতন হিন্দু ধর্ম টিকে থাকার পেছনে পুরো কৃতিত্ব রয়েছে বর্তমান হিন্দুদের পূর্বপুরুষ প্রাচীন মুনি-ঋষিদের।

ও তাই নয় এই মুনি-ঋষিরা বিজ্ঞান, গণিত, স্বাস্থ্য থেকে শুরু করে জ্যোতির্বিজ্ঞান, যুদ্ধ-কলা সমস্ত কিছুতেই পারদর্শী ছিলেন। এমনকি আজকের দিনেও মেকেল শিক্ষা পদ্ধতিতে পড়া একজন ব্যক্তির কাছে এই সমস্ত কিছু কল্পনা মাত্র। তবে একথা আপনাদের জানিয়ে রাখি, এখনো পর্যন্ত আধুনিক যুগের বিজ্ঞানীরা ভারতের বিষয়ে যে মত প্রকাশ করেছেন তাতে বিশ্বের যে কোন মানুষকে হিন্দুদের মহানতা সামনে মাথানত করতে হবেই। মহান বিজ্ঞানী আলবার্ট আইনস্টাইনকে চেনেন না এমন লোক হয়তো হাতে গোনা। তার সময় কালে তিনি ভারত সম্পর্কে মন্তব্য করে গিয়েছেন।

তিনি জানিয়েছিলেন, আমরা ভারত দেশের প্রতি ঋণী। ভারতবর্ষ আমাদের গুনতে শিখিয়েছে। ভারত ছাড়া কোন রকম ভাবে সফল বৈজ্ঞানিক আবিষ্কার করা সম্ভব হতো না।আইনস্টাইন হল বিশ্বের একজন অন্যতম সফল বৈজ্ঞানিক। ইনি নোবেল পেয়েছিলেন তার আবিষ্কারের জন্য। এনার থিওরি অফ রিলেটিভিটি নামক আবিষ্কার ছিল অন্যতম এবং শ্রেষ্ঠ। তবে আপনাদের একটা কথা জানিয়ে দিই সংখ্যার আবিষ্কার কিন্তু ভারতবর্ষে প্রথম হয়েছিল। তবে ভারতের এই আবিষ্কার ভারতের থেকে ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করছিল কিছু ষড়যন্ত্রকারীরা। আমরা হয়তো অনেকেই জানি শূন্যের(0) আবিষ্কার করেছিলেন ঋষি আর্যভট্ট।

শুধুমাত্র শূন্যের আবিষ্কার নয় ওজন নীতি, বীজগণিত, ত্রিকোণমিতি, দৈর্ঘ্য নীতি, সুলভ সূত্র, রেখা গণিত এই সমস্ত কিছুই ভারতেই আবিষ্কার হয়েছে। আর্থার সেপেনহাবার একজন মহান দার্শনিক ছিলেন। উনি একবার ভারতের সম্পর্কে এক বিরাট মন্তব্য করেছিলেন। তিনি নিজে খোদ স্বীকার করেছিলেন যে, উপনিষদের মতন পবিত্র গ্রন্থ বিশ্বের আর কোথাও নেই যেটা ভারতে রয়েছে। এই পবিত্র গ্রন্থটি পড়ে আমি অনেক শান্তি পেয়েছি। শুধু তাই নয় মৃত্যুর পরও শান্তি পাবো।মহান বিজ্ঞানী আলবার্ট আইনস্টাইন আর্থার সেপেনহাবারের অনেক বড় ভক্ত ছিলেন, এবং তার লেখা নিয়মিত পড়তেন এবং অনুসরণ করার চেষ্টা করতেন।

Related Articles

Back to top button