বিরাট কোহলির পর রোহিত নয় বরং ইনি হতে পারেন ভারতীয় ক্রিকেট টিমের অধিনায়ক

অতিরিক্ত কাজের চাপের ফলে টি-টোয়েন্টি ফরমেটের অধিনায়ক পদ, ত্যাগ করবেন বিরাট কোহলি। কিন্তু তার বরাবরই টেস্ট ক্রিকেট ফরমেট পছন্দের তাই এই ক্রিকেটের অধিনায়ক ও ওয়ানডে ম্যাচের অধিনায়ক হিসেবেই থাকতে চান। এমনকি RCB দলের অধিনায়কের পদ থেকে সরে আসবেন তিনি এমনই ঘোষণা করেছিলেন। কারণ বর্তমানে ক্রিকেটাররা নিজেদের জন্য প্রায় সময় বের করতে পারেনই না। কিন্তু, বিশেষজ্ঞদের মতে এরপরে হয়তো কোহলির একদিনের ম্যাচ থেকেও অধিনায়কত্ব চলে যেতে পারে।

যদি আগামী টি-টোয়েন্টি ওয়ার্ল্ড কাপে ভারত বিজয়ী না হতে পারে তাহলে ২০২৩ এর জন্য ভাবা হচ্ছে নতুন অধিনায়ক। ভবিষ্যতের কথা ভেবে সৌরভের বিসিসিআই এই পদক্ষেপ নিতে পারে। আগামী বিশ্বকাপ হবে ২০২৩ সালে তা পর্যন্ত কোহলির বয়স প্রায় ৩৪-৩৫ বছর হয়ে যাবে। অনেকেই ভাবছেন ভবিষ্যতের অধিনায়ক হিসাবে অন্যতম খেলোয়াড় রোহিত শর্মা র কথা ভাবা হচ্ছে না কারণ তার ক্রিকেটের ক্যারিয়ার প্রায় শেষের দিকে।

আর বিশ্বকাপ আস্তে আস্তেই তিনি প্রায় কোহলির মতই বয়সে পৌঁছে যাবেন। আর এজন্যই তরুণ খেলোয়ার দের উপরই নির্ভর করতে হবে ক্রিকেট বোর্ডকে। তবে কার কথা ভাবা হচ্ছে তা এখনো সঠিকভাবে জানা যায়নি। ঋষভ পন্থ, শ্রেয়াস আইয়ার, কে এল রাহুলদের নাম ভাবা হচ্ছে ভবিষ্যতে অধিনায়ক পদের জন্য। Rishabh Pant এখন দিল্লির হয় নিপন অধিনায়কত্ব করছে আর যা বিশেষজ্ঞদের বিশেষভাবে দৃষ্টি আকর্ষণ করছে আর যার ফলে তার নাম তিন ফরমেটে জন্যই প্রায় পাকাপোক্ত হতে পারে। এই জন্য আগামী অধিনায়কের পদ এর জন্য অবশ্যই থাকবে পান্থ এর নাম।

Advertisements

শ্রেয়াসের নামও এক্ষেত্রে বিবেচনার মধ্যে থাকতে পারে, বিশেষত দিল্লির হয়ে যেভাবে অধিনায়কত্ব সামলেছেন তিনি তা যথেষ্ট প্রশংসার দাবি রাখে। কিন্তু ভারতের হয়ে এখনো তিন ফরম্যাটে জায়গা পাকা নয় শ্রেয়াসের। অন্যদিকে ততখানি অধিনায়কত্বের অভিজ্ঞতা নেই পন্থেরও। আর সেই কারণেই সকলকে টেক্কা দিয়ে দৌড়ে এগিয়ে যেতে পারেন কে এল রাহুল। গত কয়েক বছর ধরে আইপিএলের অধিনায়কত্ব করেছে কে এল রাহুল, আর সেই কারণেই তার অধিনায়কত্বে অভিজ্ঞতা অনেকটাই বেশি।

Advertisements

তার নাম ভারতের অধিনায়কত্বে প্রায় পাকাপাকি ভাবে ভাবা যেতে পারে। কে এল রাহুল যথেষ্ট বিচক্ষণ বুদ্ধিসম্পন্ন, আর খেলাতেও তারই বুদ্ধির প্রকাশ ঘটে। তাই সুনীল গাভাস্কার এর মত বিশেষজ্ঞের মতে তার এই বুদ্ধি অধিনায়কত্বে প্রয়োগ করে ভারতীয় ক্রিকেট দলকে আরও উচ্চ শিখরে নিয়ে যেতে পারে। মাত্র ২৯ বছর বয়সে বিরাট কোহলি টি-টোয়েন্টি ও ওয়ানডে ফরমেটের অধিনায়কত্ব পেয়েছিলেন। আর বিসিসিআই তার বিশেষ প্রতিভা দেখে ভবিষ্যতের জন্য যথেষ্ট সময় ব্যয় করেছিলেন। আর এমনই কে এল রাহুল ও যথেষ্ট বিচক্ষণ হওয়ায় কোহলির পরে তার অধিনায়কত্ব আমরা আগামী সময়ে দেখতে পাবো।