ভারতীয় সেনা থেকে রিটায়ারমেন্ট এর পর বিশ্বাসযোগ্য কুকুরদের মেরে দেওয়া হয় গুলি ! কারণ জানলে ..

আপনারা এটা নিশ্চয়ই শুনেছেন যে কুকুরেরা মানুষের সবচেয়ে ভালো বন্ধু হতে পারে।কঠিন থেকে কঠিন পরিস্থিতিতে তারা তার প্রভুর সঙ্গ কোনদিনও ছাড়ে না।
কিন্তু কি হবে যখন আমরা সেই ভালো বন্ধুকে নিজের হাতেই মেরে ফেলি, চিরজীবনের জন্য তাকে যদি মৃত্যুর কবলে সুইয়ে দিই?আপনি ঠিকই শুনেছেন, একটি কুকুর রিটায়ার হয়ে যাওয়ার পর আমাদের ভারতের সেনা তাকে নিজের হাতে গুলি করে মেরে ফেলে । আমাদের দেশের সেনা কেন সেই নির্দোষ কুকুর কে মেরে ফেলে এর পেছনে কি কারণ হতে পারে, তা আমরা আপনাদের জানাবো।

যখন সেনার এক ব্যক্তি আরটিআই কে প্রশ্ন করে যে, কুকুরগুলি রিটারমেন্ট হওয়ার পর কিভাবে মারা গেল?
তখন আরটিআই বিভাগ প্রশ্নের জবাবে বলে, কুকুর গুলি সিকিউরিটির কারণে মারা গেছে । কারণ, কুকুর গুলি সেনার সকল গুপ্ত স্থানের সন্ধান জানে এবং তাদেরকে না মারা হলে তারা যদি কোন খারাপ লোকের হাতে পড়ে যায় তাহলে কোন বড় বিপদ ঘটার সম্ভাবনা হতে পারে।

এছাড়াও আরটিআই কুকুরগুলি কে মারার আরেকটা কারণ দেখিয়েছে, যদি কোনো কুকুর অসুস্থ হয়ে যাই এবং ট্রিটমেন্ট করেও যদি সে সুস্থ না হয় , তাহলে তাকে মেরে ফেলা হয়।
আপনাদের জানিয়ে দি ,এই যে সেনাদের কাছে এতটা টাকা থাকে যেটাতে তারা অসুস্থ কুকুরটির খুব সহজে ভালো করে দেখাশুনা করতে পারে,কিন্তু যখনই কথাটি দেশের সুরক্ষার আসে, তখন তারা রিস্ক নিতে পারেনা। তাদের মন না চাইলেও তাদের এমনি কিছু একটা করতে হয় ।