বিশ্বের দরবারে এক ঘরে দাঁড়িয়েছে চীন! ভারতের পর এবার জাপানির ধাক্কায় টালমাটাল চীনের বেজিংয়

লাদাখের গালওয়ান উপত্যকায় ভারত-চীন সংঘর্ষের জেরে ভারত সরকার চীনেকে শায়েস্তা করতে একের পর এক পদক্ষেপ গ্রহণ করতে দেখা যাচ্ছে। কখনো দেখা যাচ্ছে চীনের সাথে একাধিক বাণিজ্যিক চুক্তি রদ করে দিতে আবার কখনো ভারতে চীনা অ্যাপ ব্যান করে দেওয়ার মতো ঘটনাও। তবে শুধু ভারতেই নয় এই বছর চীন গোটা বিশ্ব জুড়ে করোনা ভাইরাস ছড়ানো জেরে চর্চায় রয়েছে, আর গোটা বিশ্ব চাইছে চীনকে এর উপযুক্ত জবাব দিতে।এর আগে ভারতসহ আমেরিকাকে চীনের সাথে একাধিক বাণিজ্যিক চুক্তি রদ করে দিতে দেখা গিয়েছিল।

তবে এখন যে খবরটি বেরিয়ে আসছে সেখানে জানতে পারা যাচ্ছে জাপান ও এবার চীনের দিক থেকে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছে। আর আবারো চীন সজোরে ধাক্কা খেতে চলেছে। প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী জানতে পারা যাচ্ছে এবার জাপানের 57 টি সংস্থা চীনের কাছ থেকে সরে আসার পরিকল্পনা চালাচ্ছে। প্রসঙ্গত যেমনটা আমরা জানি গত কয়েকদিন আগে লাদাখ সীমান্তে ভারত ও চীনের সৈনিকদের মধ্যে সংঘর্ষ বাঁধে যেখানে ভারতীয় 20 জন জওয়ানকে শহীদ হতে হয়েছিল। আর তারপর থেকে গোটা দেশ ক্ষোভে ফুসছিল চীনের বিরুদ্ধে।

আর তারপর কেন্দ্র সরকারের তরফ থেকে চীনকে ডিজিটাল পদ্ধতিতে শায়েস্তা করতে ভারতে চীনের অতি জনপ্রিয় 59 টি অ্যাপ বন্ধ করে দেওয়া হয়। আর এরপরই সেই পথে হাঁটার সিদ্ধান্ত নেয় আমেরিকাও, আর এবার পালা জাপানের। বর্তমানে জাপান সরকার ও কোন ভাবেই চাইছে না যে তাদের কোন সংস্থা চীনে থাকুক। যার দরুন জাপান সরকারের তরফ থেকে এই সংস্থাগুলিকে সরিয়ে আনার ব্যবস্থা করা হচ্ছে এবং বলা হয়েছে এই সংস্থাগুলিকে আরও উন্নত সুযোগ-সুবিধা উন্নত পরিকাঠামোর ব্যবস্থা করার জন্য জাপান সরকার এর পিছু 54 কোটি ডলার টাকা খরচ করতে রাজি রয়েছে।

অর্থাৎ জাপান সরকার রীতিমতো বুঝতে পেরেছে যেখানে অন্যান্য দেশ ইতিমধ্যে চীনের সাথে সম্পর্ক ভেঙে দিচ্ছে সেখানে তাদের চীনের সাথে ভালো সম্পর্ক রাখার কোনো মানেই দাড়ায় না কারণ চীন যে ইচ্ছাকৃত ভাবে গোটা বিশ্ব জুড়ে যে করোনা ভাইরাস ছড়িয়েছে তা এখন গোটা বিশ্বজুড়েই মহামারির আকার ধারণ করেছে।তাছাড়া চীনের একচেটিয়া আধিপত্য মানতে নারাজ রয়েছে যে কোন দেশেতে চীনের সাথে অনেক দেশেরই সংঘাত তৈরি হয়েছে এই বিষয় নিয়ে। আর সব সময় চীনের চোখ রাঙানি মানতে নারাজ রয়েছে।

এবার প্রতিটা দেশ চীনের বিরুদ্ধে দাগল না, তাই ভারত- আমেরিকার পর এক এক করে অন্যান্য দেশগুলিও চীনের বিরুদ্ধে হাঁটতে শুরু করে দিয়েছে। শুধু ভারত- আমেরিকা, জাপানই নয় এর পাশাপাশি মায়ানমার, থাইল্যান্ড, দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া, ভিয়েতনামের দেশগুলো চীন থেকে নিজেদের ব্যবসা গুটিয়ে নিতে একাধিক পদক্ষেপ গ্রহণ করতে দেখা যাচ্ছে।