রাজ্য সরকারের বড় ঘোষণা প্রায় 11 বছর পর বিদ্যুৎ কমিটিতে গঠন করা হলো নতুন বেতন কমিটি

পুজোর ঠিক কয়েকদিন আগেই রাজ্যের প্রায় 30 হাজার বিদ্যুৎ কর্মীদের জন্য সুখবর এল। এর আগে অবশ্য রাজ্য সরকারের সমস্ত কর্মচারীদের জন্য বেতন বাড়ার সুখবর জানিয়েছে রাজ্য সরকার। রাজ্য সরকারি কর্মচারীরা পরের বছর জানুয়ারি মাস থেকে বর্ধিত বেতন পাবেন বলে ঘোষণা করে দিয়েছে রাজ্য সরকার। প্রায় 11 বছর পরে এই প্রথমবার রাজ্য বিদ্যুৎ বন্টন সংস্থার কর্মীদের জন্য বেতন কমিটি গঠন করা হয়েছে। এই সংস্থার চেয়ারম্যান হলেন শান্তনু বসু।

মঙ্গলবার বিদ্যুৎ ভবন থেকে পাওয়া খবর অনুসারে জানা গিয়েছে সান্তনু বসুর নেতৃত্বে চার সদস্যের এই কমিটি গঠন করা হয়েছে। এই কমিটির পোশাকি নাম কর্ম সমিতি। রাজ্যের বিদ্যুৎ কর্মীরা দীর্ঘদিন ধরে দাবি জানিয়ে আসছিল যে, তাদের জন্য বকেয়া ডিএ মেটানো এবং নতুন করে বিদ্যুৎ কমিটি গঠন করার জন্য। তাই কার্যত তাদের এই দাবি মেনে নিল রাজ্য সরকার। জুলাই মাসে তাদের বকেয়া ডিএ 10% মিটিয়ে দেওয়ার কথা দিয়েছে রাজ্য সরকার।

আর নবান্নের সবুজ সংকেত পাওয়ার পরেই রাজ্যের বিদ্যুৎ কর্মীদের জন্য নতুন কমিটি গঠন করা হলো। বিদ্যুৎ ভবন থেকে জানা গেছে 15 ডিসেম্বরের মধ্যে এই কমিটি রিপোর্ট দেবে। শুধুমাত্র রাজ্য সরকারের বর্তমান কর্মচারীদের সুযোগ-সুবিধা পাবেন না এমনকি অবসরপ্রাপ্ত  বিদ্যুৎ কর্মচারীরাও এই সুযোগ সুবিধা পাবেন বলে জানানো হয়েছে। বিদ্যুৎ ভবন সুত্রে খবর পাওয়া গেছে, এই  বেতন কমিটি কেন্দ্রীয় এবং রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের পাশাপাশি বিভিন্ন রাজ্য ও কেন্দ্রীয় সরকারের অন্তর্গত ঐ সমস্ত সংস্থার কর্মীদের বেতন কাঠামো এবং আর্থিক সুযোগ-সুবিধা পর্যালোচনা করে একটি সুপারিশ পেশ করবে এই কমিটি।

কর্মীদের পদোন্নতি থেকে শুরু করে অবসরকালীন সমস্ত সুযোগ-সুবিধাসহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে এই কমিটি পর্যালোচনা করতে পারবে। এছাড়াও বিদ্যুৎ সংস্থাগুলির আর্থিক স্বাস্থ্যের উপরেও নজর রাখা হবে। এরপর বন্টন সংস্থার পরিচালনা পর্ষদ ওই কমিটির সুপারিশ খতিয়ে দেখে তা পাস করলে তবেই সেটি কার্যকর হবে। একইভাবে এই নিয়ম অনুযায়ী সুপারিশ মেনে চলা হবে বিদ্যুৎ উন্নয়ন নিগম এবং রাজ্য বিদ্যুৎ সংবহন সংস্থার কর্মীদের ক্ষেত্রেও। প্রসঙ্গত 2009 সালে বিদ্যুৎ বন্টন কর্মীদের জন্য শেষ কমিটি গঠন করা হয়েছিল। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সেপ্টেম্বর মাসেই রাজ্য সরকারি কর্মীদের জন্য ষষ্ঠ বেতন কমিশন কার্যকর করার ঘোষণা করেন।

Related Articles

Close