চীনা বয়কটের জেরে এবার সেরা অভিনেতার পুরস্কার ফেরালেন অভিনেতা জিৎ…

যত দিন যাচ্ছে তত ভারত এবং চীনের উত্তেজনা ক্রমশ বেড়েই চলেছে। তবে এবার ভারত সরকারের তরফ থেকে চীন কে শায়েস্তা করতে একের পর এক পদক্ষেপ গ্রহণ করতে দেখা যাচ্ছে। যেখানে ইতিমধ্যে ভারত সরকারের তরফ থেকে আপাতত 59 টি চাইনিজ অ্যাপ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। তার পাশাপাশি একাধিক সংস্থার তরফ থেকে এখন চীনা পণ্য বর্জন করার ডাক দেওয়া হয়েছে।এখন ভারতের একটাই লক্ষ্য অর্থনৈতিক দিক থেকে এবং সামরিক দিক থেকে চীনকে পুরোপুরি জব্দ করা।

গত কয়েকদিন আগেই ভারতের পাওয়ার এবং স্টিলের ব্যবসা করা জিন্দাল গ্রুপের এই নিয়ে বিশেষ ঘোষণা করা হয় যেখানে তারা জানান চীন থেকে এর আগে যে 400 মিলিয়ন ডলারের মাল আমদানি করা হতো ভারতে তা আর আমদানি করা হবে না। অন্যদিকে গতকাল হিরো কোম্পানির চেয়ারম্যান পঙ্কজ মুঞ্জাল জানান তারাও বর্তমানে চীনের সাথে 900 কোটি টাকার চুক্তি বাতিল করে দিয়েছেন।তাছাড়া গোটা দেশের মানুষ এই মুহূর্তে চীনা পণ্য বর্জন করার ডাক দিয়েছেন, আর এই ডাকে পেছিয়ে রইলেন না অভিনেতা জিৎ।

ডিজিটাল অ্যাওয়ার্ডে শ্রেষ্ঠ অভিনেতা হিসাবে পুরস্কার দেওয়ার জন্য তার নাম নির্বাচিত করা হয়। কিন্তু সেই পুরস্কার তিনি ফিরিয়ে দিয়েছেন মনটাই প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী জানতে পারা যাচ্ছে। তবে এই পুরস্কার ফিরিয়ে দেবার পেছনে কারণ হিসাবে জানতে পারে যাচ্ছে এই অনুষ্ঠানটি সঙ্গে জড়িত রয়েছে চীনা সংস্থার স্পনসর্শিপ। আর তার জন্যই এই পুরস্কার না নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন অভিনেতা জিৎ। আর এই বিষয় নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় গোটা ঘটনার কথা একটি ভিডিও আকারে পোস্ট করে নিজের ভক্তদের জানিয়েছেন জিৎ।

যেখানে তিনি জানান ভোটিংয়ের মাধ্যমে ডিজিটাল আমাকে শ্রেষ্ঠ অভিনেতা হিসাবে নির্বাচিত করা হয় যারা নিজেদের সময় ব্যয় করে আমাকে ভোট দিয়েছেন এসব অনুরাগীদের এ ক্ষেত্রে অসংখ্য ধন্যবাদ আমার তরফ থেকে।তবে অনেকেই হয়তো জানেন না এই অনুষ্ঠানটির সঙ্গে যুক্ত রয়েছে একটি চীনা সংস্থা। তিনি জানান আমার ব্যক্তিগত কোনো অভিযোগ নেই তবে যেহেতু চীনের সঙ্গে বর্তমানে আমাদের দেশের সম্পর্ক ভালো যাচ্ছে না এবং আমাদের সীমা সেনারা শহীদ হয়েছেন তাই এই পুরস্কার নিতে আমার ইচ্ছে করেনি। আমি সীমান্তে গিয়ে লড়তে পারবো না কিন্তু নিজের দেশের জন্য যতটুকু করতে পারি ততটুকু করার চেষ্টা করবো।

যতদিন না দেশের সঙ্গে ভালো সম্পর্ক হচ্ছে আমি ততদিন এই পুরস্কার নিতে পারবো না আশা করছি আপনারা আমাকে বুঝবেন, এক্ষেত্রে আপনাদের ভালোবাসায় আমাদের কাছে বিরাট পুরস্কার। প্রসঙ্গত গালওয়ান উপত্যকায় যবে থেকে ভারত এবং চীনের মধ্যে সংঘর্ষ বাঁধে তারপর থেকেই একাধিক পদক্ষেপ গ্রহণ করতে দেখা যায় ভারত সরকারকে চীনের বিরুদ্ধে। যেখানে গোটা দেশের মানুষ চীনা পণ্য বয়কট করা উদ্যোগে শামিল হয়েছে। তাছাড়া ভারত সরকারের তরফ থেকে ইতিমধ্যে 59 টি চীনা অ্যাপ ব্যান করে দেওয়া হয়েছে যাদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য রয়েছে টিকটক, শেয়ার ইট, হ্যালো, ক্যাম স্ক্যানার, ইউসি ব্রাউজার, জেন্ডার, ক্লিন মাস্টার সহ আরও অন্যান্য অ্যাপ।

Related Articles

Back to top button