নতুন পেন্সিল কিনতে চাইলে মা কিনে দেয় না, মারে! মূল্যবৃদ্ধির জ্বালায় এবার প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি লিখল ৬ বছরের খুদে

রীতিমতো নালিশ জানালো ছ’বছরের এক খুদে, তাও আবার যে কাউকে নয় ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে। খোলা চিঠি লিখলেন নিজের অপরিপক্ক হাতে। সেই ৬ বছরের খুদের নাম কৃতি দুবে, প্রথম শ্রেণীতে পাঠ রত এই পড়ুয়া, উত্তরপ্রদেশের কনৌজের ছোট্ট একটি শহর ছিবড়ামউয়ের বাসিন্দা।

এই খুদে লিখেছে আমাদের বর্তমান জীবনের সবথেকে বড় সমস্যা মূল্যবৃদ্ধিকে নিয়ে। এই মূল্যবৃদ্ধির জেরে তাঁর জীবনে কত রকম সমস্যা এসে পড়েছে সে কথাই লিখেছে সে চিঠিতে। সে চিঠি রীতিমতো ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ার পাতায়। আসুন জানা যাক কৃতি সেই চিঠিতে ঠিক কি কি লিখেছে। প্রথমেই কৃতি তাঁর নিজের পরিচয় দিয়েছে, এমনকি সে প্রথম শ্রেণীতে পড়েন সে কথাও জানিয়েছে।

তারপরে সে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে বলে নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দাম যেভাবে উত্তরোত্তর বৃদ্ধি পেয়েছে তাতে তার পেন্সিল রাবারের দামও অনেকটাই বেড়েছে। সেগুলো অনেকটাই দামি হয়ে পড়েছে, যে কারণে নতুন পেন্সিল কেনার বায়না করলেই তাঁর মা তাঁকে মারতে উদ্ধত হয়। অথচ কৃতি জানায় তাঁর অন্যান্য বন্ধুরা তাঁর কাছ থেকে পেন্সিল চুরি করে নিলে তার ঠিক কি করনীয় রয়েছে তাতে?

অন্যদিকে তার পছন্দের খাবার ম্যাগি, তাতেও দাম বৃদ্ধি পেয়েছে, তাই তাতেও রাশ টানতে হয়েছে। তবে মেয়ের চিঠি ভাইরাল হয়েছে জেনে বাবা বিশাল দুবে জানান এটি তার মেয়ের মনের কথা। তিনি পেশায় একজন আইনজীবী তাঁর মা স্কুলে পেন্সিল হারিয়ে ফেলায় মেয়েকে অত্যন্ত বকাঝকা করেন এবং মেয়েকে বোঝানোর চেষ্টা করেন জিনিসপত্রের ঠিক কতটা দাম বেড়েছে এবং সমস্ত ক্ষোভ মেয়েকে দেখান। তাই মায়ের সে ক্ষোভ প্রধানমন্ত্রীর কাছে উগড়ে দিতে কৃতির এই চিঠি লেখা।

তবে এই চিঠি দেখেছেন ছিবড়ামউয়ের জেলা সদর আধিকারিক, তিনি আশ্বাসও দিয়েছেন এই চিঠি যাতে সযত্নে প্রধানমন্ত্রী কাছে পৌঁছানো যায় সেটি দেখবেন তিনি। তাই আশা করা যায় এই নিষ্পাপ শিশুর খোলা মনের চিঠিটি দেখে যদি প্রধানমন্ত্রীর সিদ্ধান্তে কিছু বদল আসে।