বিনিয়োগ করুন এই সরকারি যোজনাতে, প্রত্যেক মাসে মিলবে 9250 টাকা করে পেনশন

করোনা সংক্রমনের কারণে ব্যাংক এবং পোস্ট অফিসের পেনশন প্রকল্প গুলিতে এবং সমস্ত ধরনের ফিক্স ডিপোজিটের সুদের হার ক্রমশ কমে যাচ্ছে।  এর ফলে প্রবীণ নাগরিকরা খুবই সমস্যায় পড়েছেন।  কারণ পেনশনের ওপর নির্ভর করেই তাদের জীবন নির্বাহ হয়।  এই পরিস্থিতিতে প্রধানমন্ত্রীর ভায়া বন্দনা যোজনা নামে একটি আকর্ষণীয় অফার নিয়ে এসেছেন।  এই যোজনাতে যে কোন ফিক্স ডিপোজিট বা পেনশন প্রকল্প থেকে বেশি সুদ পাওয়া যাচ্ছে।

যদিও করোনার জেরে এই সুদের হার কমেছে।  তবুও বার্ষিক পেনশনের ক্ষেত্রে সুদের হার 8 পার্সেন্ট থেকে কমে হয়েছে 7 দশমিক 4 শতাংশ।  পেনশনের ক্ষেত্রে সুদের হার হয়েছে 7 দশমিক 66 শতাংশ।  প্রত্যেক বছর 1 এপ্রিল সরকার রিটার্ন মূল্যায়ন করেন।  পেনশন মাসিক, ত্রৈমাসিক, অর্ধবার্ষিক, বার্ষিক ভিত্তিতে নেওয়া যেতে পারে।

নতুন সংশোধনী গ্রাহককে মাসিক হাজার টাকা পেনশন এর জন্য সর্বনিম্ন 1.62 লক্ষ টাকা বিনিয়োগ করতে হবে।  ত্রৈমাসিক টেনশন এর জন্য 1.61 লক্ষ টাকা বিনিয়োগ করতে হবে।  অর্ধবার্ষিক পেনশনের জন্য   1.59 লাখ টাকা বিনিয়োগ করতে হবে এবং বার্ষিক পেনশনের জন্য 1.56 লাখ টাকা বিনিয়োগ করতে হবে।

মেনে চলুন এই ঘরোয়া পদ্ধতিগুলি, এক ঝটকায় বিদ্যুতের বিল কমবে 50 শতাংশ পর্যন্ত

প্রধানমন্ত্রী ভায়া বন্দনা যোজনাতে সর্বাধিক মাসিক পেনশন হতে পারে 9250 টাকা।  এর জন্য বিনিয়োগকারীকে সর্বোচ্চ 15 লক্ষ টাকা পর্যন্ত বিনিয়োগ করতে হবে।  2021 সালের মধ্যে 15 লক্ষ টাকা বিনিয়োগ যদি করেন তাহলে 2030 সালের মধ্যে 7 দশমিক 4 শতাংশ হারে রিটার্ন পাবেন।  10 বছরের পরে বিনিয়োগকারী যদি বেঁচে থাকে তাহলে পেনশনের  বিনিয়োগকৃত অর্থ তিনি ফিরে পাবেন।

অন্যদিকে যদি বিনিয়োগকারী মারা যান,  তাহলে তার নমিনি ফেরত পেয়ে যাবেন সব টাকা৷ এই   স্কিমের আওতায় প্রবীনদের পেনশন এর ব্যবস্থা করা হয়েছে।  এই প্রকল্পটি LIC  এর আওতায় রাখা হয়েছে কারণ 60 বছর বয়সের পরে এর সুবিধা নেওয়া যায়।