লকডাউন এর মধ্যেই খোলা হচ্ছে 3000 স্কুল, অনুমতি প্রদান করল কেন্দ্র..

দেশজুড়ে করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে জারি রয়েছে লকডাউন আর সেই নিয়ম মেনেই বন্ধ রয়েছে দেশের সমস্ত স্কুল-কলেজ সহ বিশ্ববিদ্যালয় গুলি।তবে এবার কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের তরফ থেকে শনিবার দিন মিলল দেশের 3000 টি স্কুল খোলার ছাড়পত্র। CBSE  দশম ও দ্বাদশ শ্রেণির  বোর্ড পরীক্ষার খাতা দেখার জন্য এই তিন হাজার স্কুলকে মূল্যায়ন কেন্দ্র অর্থাৎ ইভালুশেন সেন্টার হিসেবে নির্দিষ্ট করা হয়েছে।তবে বলে রাখি যে শুধুমাত্র এ ক্ষেত্রে পরীক্ষার খাতা দেখার জন্য স্কুল খোলার অনুমতি দেওয়া হয়েছে কেন্দ্রর তরফ থেকে।

এ বিষয়ে কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রকের রমেশ পোখলিয়ার জানান, 3000 টি স্কুল খাতা দেখার জন্য খোলার অনুমতি দেওয়া হয়েছে,এই মুহূর্তে প্রায় দেড় কোটিরও বেশি পরীক্ষার উত্তরপত্র ইতিমধ্যে দেখার জন্য পৌঁছে গিয়েছে শিক্ষকদের কাছে। সেহেতু সেটিকে আগামী 50 দিনের মধ্যে দেশে ও মার্কসিটের কাজ শেষ করে দেওয়া হবে বলে জানান তিনি। তবে কেন্দ্রের তরফ থেকে আরেকটি বিষয় স্পষ্ট জানিয়ে দেওয়া হয়েছে যেখানে জানানো হয়েছে এই সময়ে স্কুলে কোন রকম ক্লাস নেওয়া যাবে না তাছাড়া এক্ষেত্রে 3000 টি স্কুলের পাশাপাশি সিবিএসই-এর 16 টি দপ্তর খোলার অনুমতি প্রদান করা হয়েছে কেন্দ্রের তরফ থেকে। তবে এক্ষেত্রে যেসব কাজগুলি করা হবে সেগুলি সম্পূর্ণ COVID-19 এর গাইডলাইন মেনেই, তবে যেমনটা আমরা জানি এই করোনা পরিস্থিতির জন্য মাঝপথেই বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল সিবিএসই বোর্ড পরীক্ষা যার ফলে প্রায় লক্ষ লক্ষ পরীক্ষার্থীর সমস্যায় পড়েছিল।তবে কিছুদিন আগে এই বিষয়ে জানানো হয়েছে আগামী পয়লা জুলাই থেকে 15 জুলাইয়ের মধ্যে মূল 29 টি বিষয়ে পরীক্ষা নিয়ে নেয়া হবে। তবে শুধু তাই নয় অন্যদিকে এক্ষেত্রে পরীক্ষার্থীদের মূল্যায়ন পদ্ধতি দলবদল করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে আইসিএসই বোর্ড।

মূলত এতদিন ধরে পরীক্ষার্থীদের উত্তরপত্র একসঙ্গে একাধিক শিক্ষক নির্দিষ্ট জায়গার মধ্যে বসে মূল্যায়ন করতেন তবে যেভাবে করোনা ভাইরাসের আতঙ্ক দেশজুড়ে ছড়িয়ে পড়েছে তাদের সেই সিদ্ধান্তে হয়েছে বদল। যার দরুন বোর্ডের তরফ থেকে এখন নির্দেশিকা জারি করে জানানো হয়েছে আইসিএসই আইএসপি যাবতীয় উত্তরপত্র শিক্ষকেরা বাড়িতে বসেই মূল্যায়ন করবেন আর মূল্যায়ন করা উত্তরপত্র তারা অনলাইনের মাধ্যমে আপলোড করে দেবেন।