বাংলার ১৪ টি জেলায় শৈত্যপ্রবাহের সতর্কবার্তা

৩১ জানুয়ারি জম্মু ও কাশ্মীরে একটি পশ্চিমী ঝঞ্ঝা প্রবেশ করেছে৷  অন্য একটি পশ্চিমী ঝঞ্ঝা  মঙ্গলবার নাগাদ প্রবেশ করবে বলে জানা যাচ্ছে । এই কারণে  সমগ্র উত্তর ভারত জুড়ে তুষারপাত এবং বজ্রবিদ্যুৎ-সহ বৃষ্টি হতে পারে৷  বিশেষ করে পশ্চিম হিমালয় অঞ্চলে বুধবার থেকে শুক্রবার পর্যন্ত বৃষ্টি হতে পারে৷

 

আগামী ৪৮ ঘন্টায় উত্তরবঙ্গে বৃষ্টির সম্ভাবনা নেই৷ হিমালয় সংলগ্ন পশ্চিমবঙ্গে রাতের তাপমাত্রার তেমন কোনও পরিবর্তন হবে না। তারপর  ২-৩ ডিগ্রি পর্যন্ত তাপমাত্রা বাড়তে পারে। উত্তরবঙ্গে ঘন কুয়াশার পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে। দৃশ্যমানতা ২০০ মিটারের নীচে নেমে যেতে পারে। জলপাইগুড়ি, কোচবিহার, উত্তর দিনাজপুর, দক্ষিণ দিনাজপুর, মালদহে শৈত প্রবাহের  পরিস্থিতি তৈরি হতে পারে বলে সতর্কতা জারি করা হয়েছে।

৩ থেকে ৪ ডিগ্রি পর্যন্ত তাপমাত্রা কমতে পারে৷ তবে সবকটি জেলাতেই হাল্কা থেকে মাঝারি কুয়াশা থাকতে পারে৷

ইতিহাসের পাতায় নাম লেখার অপেক্ষায় ২ বাঙালি-সহ ৩ ভারতীয়, মঙ্গলের আকাশে উড়বে কপ্টার

উত্তর ও দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন শহরের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা( ডিগ্রি সেলসিয়াস।  আগের দিনের তাপমাত্রা বন্ধনীতে দেওয়া হল

আসানসোল ৯ (৭.৮ )
বালুরঘাট ৭.৬
কোচবিহার ৭.১ (৫.১ )
দার্জিলিং ৩ (২.৪)
দিঘা ১০.৩ (১২.৬)
কলকাতা ১০.৪ (১২.১)
বাঁকুড়া ৯.১ (৮.৬)
ব্যারাকপুর ৭.৬ (১৩)
বহরমপুর ১২.৬


বর্ধমান ৮.৬ (৮.৮ )
ক্যানিং ৯.৬ (১২)
মালদহ ৮.৯ (৮.২ )
পানাগড় ৬.৪ (৬.২)
পুরুলিয়া ৮.৫ (৬.৭)
শিলিগুড়ি ৬.৫ (৭.৫ )
শ্রীনিকেতন ৭ (৭.২)