ভাইরাল ভিডিও :আজ থেকে ২৭ বছর আগে কাশ্মীরে হুমকির উপেক্ষা করে তেরঙা উত্তোলন করেন মোদী..

কাশ্মীরে ৩৭০ নং নম্বর ধারা উত্তোলনের পর থেকে রাজনৈতিক মহলে এক চরম চাঞ্চল্যকর পরিবেশের সৃষ্টি হয়েছে। যেখানে প্রায় সব বিশেষজ্ঞরাই ভারতীয় জনতা পার্টির কর্তিক মাননীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির নেওয়া এই সিদ্ধান্তে সম্মতি দিয়েছে তেমন অন্যদিকে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীও এ ব্যাপারে ক্ষুব্দ হয়ে উঠেছেন। যেখানে কয়েক দিন আগে পাকিস্তানের পক্ষ থেকে কড়া হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়েছে । যদিও এই কড়া হুঁশিয়ারি পর ভারত সরকার বা নরেন্দ্র মোদির পক্ষ থেকে তেমন ভাবে কোন মন্তব্য উঠে আসেনি।

আজ আপনাদের আমরা জানাবো কাশ্মীরে ৩৭০ নং ধারা উত্তোলনকে কেন্দ্র করে এক রোমাঞ্চকর তথ্য নিয়ে যেটি আগেও অতীতে ঘটে গেছে। ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি প্রায় ২৭ বছর আগে ৩৭০ নং ধারাকে প্রত্যাহার করেছিলেন এবং সেই উপত্যকাটিকে সন্ত্রাস মুক্ত করার দাবি করেছিলেন। সোমবার এই ৩৭০ নং ধারাটিকে সম্পূর্ণভাবে রদ করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। ১৯৯২ সালে সন্ত্রাসবাদীদের বিরোধিতা সত্ত্বেও প্রধানমন্ত্রী ভারতের পতাকা স্থাপন করেছিলেন, সামাজিক প্রতিযোগ মাধ্যমে সেই ভিডিওটি ভাইরাল হয়েছে।

বিজেপি নেতা রাম মাধব টুইট করে মোদিজীর একটি ছবি ছাড়েন এবং লেখেন “নিজের কথা রাখলেন”।সোমবার দিন ৩৭০ নং ধারার রদ হয় এবং এরপরই বিজেপি নেতা রাম মাধব প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির একটি কমবয়সী ছবি পোস্ট করেন। সেখানে একটি মঞ্চে দেখা যাচ্ছে মোদিজি কে এবং তার পিছন দিকে লেখা রয়েছে ” ৩৭০ ধারা হাটাও”।নেটিজেনরা দাবি করছে সেই ছবিটি,১৯৯২ সালে বিজেপির রাষ্ট্রীয় একতা র কথা মনে করিয়ে দেয়। আর ঠিক সেই বছরই লাল চকেতে মোদীজি ভারতের পতাকা উত্তোলন করেন এবং তার সঙ্গে ছিলেন বিজেপির নেতা মুরলীমোহন যোশী। সেই সময় রাষ্ট্রীয় একতা যাত্রার মূল ছিলেন নরেন্দ্র মোদি, আর কন্যাকুমারী থেকে শ্রীনগর এর ছিল ১৫,০০০ কিলোমিটার দীর্ঘ।সেই সময় নরেন্দ্র মোদি সন্ত্রাসবাদিকে তোয়াক্কা করে সেখানে ভারতের পতাকা উত্তোলন করেছিলেন।

দীর্ঘ ২৭ বছর পর নরেন্দ্র মোদী আজ দেশের প্রধানমন্ত্রী , তিনি দ্বিতীয়বার ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত হয়েছেন এবং ৩৭০ নং ধারার রদ করেছেন।