মহারাষ্ট্র থেকে অবৈধভাবে বসবাসকারী কমপক্ষে 22 জন বাংলাদেশীকে গ্রেফতার করল পুলিশ….

ঘটনাটি ঘটেছে মহারাষ্ট্রের পালঘর জেলায়,যেখান থেকে এবার অবৈধভাবে বসবাস করার জন্য কমপক্ষে 22 জন বাংলাদেশিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী জানতে পারে যাচ্ছে যে গভীর রাতে অন্ধকারে অভিযান চালিয়ে রাজোডি জেলায় এই সকল ব্যক্তিদের গ্রেফতার করেছে সেখানকার পুলিশ। আর এখন এইসব ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধি ইন্ডিয়ান পাসপোর্ট অ্যাক্ট 1946 অনুযায়ী মামলা দায়ের করা হয়েছে।

পুলিশের তরফ থেকে প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী জানতে পারা যাচ্ছে পুলিশ অভিযুক্ত 22 জনের কাছ থেকে এই দেশে থাকার কোন যথেষ্ট প্রমাণ পাননি তবে তারা নাকি এখানে স্থানীয় ভাবে কাজ করে রোজগার করে এমন টা জানা গেছে। তবে কিছুদিন আগে নভি মুম্বাইয়ের পানভেলে একটি পোস্টার ছেয়ে গিয়েছিল যেখানে বলা হচ্ছিল এবার বাংলাদেশীদের ভারত ছাড়তে হবে অথবা তাদের মহারাষ্ট্র নবনির্মাণ সেনা পার্টির স্টাইলে তাড়ানো হবে এদেশ থেকে।

শহরের বিভিন্ন জায়গায় এই পোস্টারটি ছড়িয়ে পড়েছিল একদিকে মহারাষ্ট্র নবনির্মাণ সেনাপাতি ফ্ল্যাগ যেখানে গেরুয়া নিয়ে ছত্রপতি শিবাজীর রয়েল সিল রয়েছে তেমনি অন্যদিকে রাজ ঠাকরে এবং পুত্র অমিত ঠাকরে যে সদ্য পার্টিতে যোগদান করেছেন। তবে মহারাষ্ট্র নবনির্মাণ সেনাপাতি উচ্ছেদের সমর্থনে ফেব্রুয়ারি 9 তারিখ প্রতিবাদের মিছিলের ডাক দিয়েছিল।যেমনটা আমরা দেখতে পাচ্ছি ডিসেম্বরের পর থেকে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনে প্রতিবাদীদের জেরে দেশের সব প্রান্তেই প্রতিবাদে সবর হয়েছে অনেক সাধারণ মানুষ থেকে শুরু করে অনেক তারকা ব্যাক্তিত্বরা।

অনেকেই এই আইনের সমালোচনা করতে গিয়ে জানিয়েছেন এই আইন নাকী মুসলিমদের বিরোধী আইন। তবে অন্যদিকে গত 23 শে জানুয়ারি গেরুয়া রং ও শিবাজী রাজমহলের ছবি দেওয়া নতুন দলীয় পতাকার উদ্বোধন করেছিলেন রাজ ঠাকরে। একই সঙ্গে তিনি বিজেপিকে এ বিষয়ে সমর্থন করার কথা ঘোষণা করেছিলেন।দেশে অবৈধ অনুপ্রবেশকারীদের আশ্রয় দেওয়ার যৌক্তিকতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে CAA ও NRC এর পক্ষে সওয়াল করেন। তারই সাথে আরো বলে রাখি যে পাকিস্তান এবং বাংলাদেশের অবৈধ অনুপ্রবেশকারীদের হাটানোর দাবিতে বিশাল মিছিলের আয়োজন করা হয়েছিল এমএনএস তরফ থেকে।