রেল রেস্টুরেন্ট,রেলের অভিনব বন্দোবস্ত! ভারতে প্রথম এমন রেস্টুরেন্ট চালু করলো রেল, বাংলার আসানসোলে…

ভারতে এটা প্রথমবার হবে যখন রেলের মধ্যে বন্দোবস্ত করা করা হল রেস্টুরেন্টের। অর্থাৎ ট্রেনের মধ্যে বন্দোবস্ত থাকবে খাবার দাবারের। আর এমন উদ্যোগ নিয়ে বাংলাতে এই প্রথম রেল রেস্টুরেন্টেটি চালু করলেন আসানসোল সাংসদ তথা কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়। আর এই রেল রেস্টুরেন্টটি তৈরি করা হয়েছে আসানসোলে। গত ফেব্রুয়ারি মাসের 26 তারিখে এই রেস্টুরেন্টটি উদ্বোধন করা হয়ে গেছে এই রেল যুক্ত রেষ্টুরেন্টের নাম রাখা হয়েছে “Restaurant on Wheels”।

এই রেস্টুরেন্টের কিছু বিশেষত্ব- হল এই রেস্টুরেন্টটি 26 শে ফেব্রুয়ারি উদ্বোধন হয়ে গেছে এবার থেকে আসানসোলের রেলের কামরায় রেস্টুরেন্টে বসে নানান ধরনের চায়ের আস্বাদন পাবেন বাঙালিরা আর তারই সাথে রয়েছে এখানে মধ্যাহ্নভোজনের ও ব্যবস্থা। প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী যা জানতে পারা গেছে সেখানে জানা যাচ্ছে বর্তমানে কোচগুলির মধ্যে একটিতে থাকবে চা এবং স্ন্যাকস এর ব্যবস্থা। এবং অন্যদিকে থাকবে একটি উন্নত মানের 42 টি আসন বিশিষ্ট রেস্তোরাঁ। আর এখানেই যাত্রীরা পেয়ে যাবেন মধ্যাহ্নভোজন থেকে শুরু করে রাতের খাবার পর্যন্ত।

আসানসোল রেল ডিভিশন এর পক্ষ থেকে দেওয়া এরকম এক উপহারের জেরে খুব খুশি হয়েছে সেখানকার শহরবাসীরা। শুধু তাই নয় এর ফলে দুটি জরাজীর্ণ মেমু কোচকে সারাই করে নতুন করে রূপদান করে আত্মপ্রকাশ করা সম্ভব হবে। আর এই নতুন পদক্ষেপের ফলে আগামী পাঁচ বছরে রেলের যে নিজস্ব আয় সেটি ছাড়াও আরো 50 লক্ষ টাকা বাড়তি আয়ের সম্ভাবনা রয়েছে। আর এই নতুন পদক্ষেপটি নেওয়ার জন্য জরাজীর্ণ দুটি কামরাকে সুসজ্জিত করে এসি এবং ননএসি রেস্টুডেন্ট পরিণত করা হয়েছে। এরই পাশাপাশি জুড়ে দেওয়া হয়েছে তিলত্তমা বাষ্প চালিত ইঞ্জিনটিকে।

তবে এক্ষেত্রে ট্রেনটিকে বাইরে থেকে দেখলে তেমনটা কিছু ফরক পড়বে না অন্যান্য ট্রেনের মতনই লাগবে এটি কেউ, তবে ট্রেনের ভিতর থেকে দেখলে একটি থ্রি স্টার হোটেল ফুড কমপ্লেক্সের মত লাগবে, কারণ ভিতর থেকে এমনভাবে সাজানো হয়েছে যাতে বাইরে থেকে এর সৌন্দর্য ধরা না গেলেও ভিতরে রয়েছে থ্রি স্টার হোটেল। প্রসঙ্গত বলে রাখি 1994 সালের 11 জুলাই থেকে শুরু হয়েছিল আসানসোল বর্ধমান মেমো প্যাসেঞ্জার ট্রেনের যাত্রা। তাই পুরনো 25 বছরের পুরাতন ট্রেনের বগী গুলিকে আর ট্রাকের ছোটানোর মতো অবস্থা নেই।তাই পরবর্তীকালে রেল কর্তৃপক্ষের তরফ থেকে এই ট্রেনের দুটি বগি কে রেস্টুডেন্ট করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল।

Related Articles

Back to top button