146 জন ব্যক্তি আইসোলেশনে! চীনে জারি লেভেল-3 এর ওয়ার্নিং, নতুন করে ছড়াতে পারে মহামারি প্লেগ..

চীন থেকে উৎপত্তি মহামারী COVID-19 এর জেরে আজ গোটা বিশ্ব অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে। এই মহামারীতে এখন একপ্রকার অস্থির রয়েছে গোটা দুনিয়া। এই মহামারীর উৎপত্তিস্থল চীন হলেও ইতালি, আমেরিকা, ব্রিটেনের মতো দেশেও মরন আকার ধারণ করেছে এই করোনা ভাইরাস। আপাতত এর থেকে মুক্তির পথ এখনো খুঁজে পাইনি কোনো দেশেই। আর তার মধ্যেই হাজির হলো আবার এক নতুন আতঙ্ক, ছড়াতে পারে প্লেগ। এক্ষেত্রে জারি করা হয়েছে লেভেল 3 এর ওয়ার্নিং।

আর ইতিমধ্যে এর দ্বারা চীনের একটি শহরে দুজন আক্রান্ত হয়েছে বলে আনতে পারা যাচ্ছে। তাই গতকাল রবিবার দিন এবিষয়ে বিশেষ সতর্কবার্তা জারি করা হয়েছে চীনে। তারপর বায়ানুর নামক ওই জায়গায় ওয়ানিং জারি করা হয়। যেখানে বায়ানুরের একটি হাসপাতালে গত শনিবার দিন দু’জনকে প্লেগ আক্রান্ত বলে সন্দেহ করা হয়। আর বলে রাখি এক্ষেত্রে যে ওয়ানিং জারি করা হয়েছে সেটি 2020 এর শেষ পর্যন্ত জারি থাকবে এমনটাই জানানো হয়েছে। ল্যাব টেস্টের মাধ্যমে ইতিমধ্যে দুজনের শরীরে প্লেগ এর উপস্থিতি নিশ্চিত করা হয়েছে তাদের মধ্যে একজনের বয়স 27 বছর আরেকজন তারই ভাই যার বয়স 17 বছর।

এদের দুজনকে দুটি আলাদা হাসপাতালে ভর্তি করে চিকিৎসা চালানো হচ্ছে। খবর অনুযায়ী জানতে পারা যায় দ্বিতীয় জন ইঁদুরের মাংস খেয়েছিল আর তার জেরে এই রোগে আক্রান্ত হওয়ার ঘটনা ঘটেছে।তবে শুধু তাই নয় এই দুজনের সংস্পর্শে এসেছে এরকম আরও 146 জন ব্যক্তিকে ইতিমধ্যে আইসোলেশনে রাখা হয়েছে। আর ইতিমধ্যে সেখানে সাধারণ মানুষকে ইঁদুরের মাংস খেতে নিষেধ করা হয়েছে। তবে সেখানকার স্থানীয় প্রশাসনের দাবি বর্তমানে ওই শহরের মহামারী আকার ধারণ করার সম্ভাবনা রয়েছে তাই মানুষকে সতর্ক করা হচ্ছে তাদের তরফ থেকে এবং অসুস্থ বোধ করলে হাসপাতালে যেতে অনুরোধ জানানো হচ্ছে সেখানকার লোকেদের।


প্রসঙ্গত বিউবনিক প্লেগ টি হল একটি ব্যাকটেরিয়া জনিত রোগ যেটি মাছি থেকে ছড়ায়। এক্ষেত্রে যদি সময়মতো চিকিৎসা করা না হয় তাহলে খুব সময়ের মধ্যে মানুষের মৃত্যু পর্যন্ত হতে পারে বলে জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। তবে চীনে এরকম ঘটনা এই প্রথম নয় এর আগে গত বছর কাঁচা ইঁদুরের মাংস খেয়ে এক দম্পতির মৃত্যু হয় এই রোগে। আর এই ঘটনাটি ঘটেছিল চীনের মনগোলিয়ান প্রভিন্সে।

Related Articles

Back to top button