ISRO চেয়ারম্যানের বড় বয়ান এবছরই তালিকাতে রয়েছে 14 টি মহাকাশ অভিযান সহ একটি মানববিহীন অভিযান

ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা সংস্থা (ISRO) এর চেয়ারম্যান কে শিবন ব্রাজিলের অ্যামেজনিয়া-১ এবং অন্য ১৮ টি উপগ্রহের সফল পরীক্ষার পর গত রবিবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি জানিয়েছেন, ISRO তরফ থেকে ২০২১ সালের জন্য ISRO আরও ১৪ টির মত মিশন যোজনা জন্য পরিকল্পনা করেছে। ১৪ টা মিশন যোজনার মধ্যে সাতটি প্রক্ষেপণ যান মিশন আর ছয়টি হল উপগ্রহ মিশন। আর এই যোজনাগুলোর মধ্যে এবছর মানে ২০২১ সালের শেষের দিকে রয়েছে ISRO এর তরফ থেকে প্রথম মানববিহীন মিশন যোজনা।

 

মিশন যোজনার প্রসঙ্গে বক্তব্য রাখতে গিয়ে এই মহাকাশ গবেষণা সংস্থার চেয়ারম্যান শিবম জানিয়েছেন ‘আমাদের হাতে অনেক মিশন আছে। আমরা এইবছর ১৪ টি মিশন করব। সাতটি প্রক্ষেপণ যান মিশন আর ছয়টি উপগ্রহ মিশন, এর সাথে সাথে বছরের শেষের দিকে আমাদের প্রথম মানববিহীন মিশনও আছে। এটা আমাদের লক্ষ্য, আর আমাদের বিজ্ঞানীরা এখন এই লক্ষ্যেই কাজ করছেন।”

এর আগে ইসরো আরও দুটি মানববিহীন মহাকাশ মিশনের যোজনা তৈরি করেছিল। গগনযান-মানব মহাকাশ মিশনের তৈরির আগেই ইসরো ওই দুটি মানুষহীন মহাকাশ মিশনের যোজনা তৈরি করেছিল। এছাড়াও তখনই ঠিক করা হয়েছিল ২০২২ পর্যন্ত গগনযান-মানব মহাকাশ মিশনের জন্য তিনজন ভারতীয়কে মহাকাশে পাঠানো হবে। এই কাজের জন্য ইসরো থেকে নির্বাচিত হওয়া চারটি টেস্টেড পাইলটের এখনও প্রশিক্ষণ চলছে।

ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা সংস্থার বাণিজ্যিক ইউনিট নিউ স্পেস ইন্ডিয়া লিমিটেড’-এর তৈরি প্রথম মিশনের জন্য গত রবিবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি শ্রীহিরকোটার স্পেস সেন্টার থেকে পিএসএলভি সি -১১, ব্রাজিলিয়ান অ্যামাজনিয়া -১ এছাড়াও আরও ১৮ টি উপগ্রহ সফলভাবে উৎক্ষেপণ করেছে ওই সংস্থাটি। এই বছর ইসরোর প্রথম মিশনের জন্য সতীশ ধাওয়ান স্পেস সেন্টার থেকে মেরু উপগ্রহ উৎক্ষেপণ যান (PSLV) সি -৫১ উৎক্ষেপন করা হয়েছে। এই উৎক্ষেপণ যানটিকে উৎক্ষেপণের পরে উপগ্রহগুলিকে তাঁদের নির্বাচিত কক্ষপথে উপস্থাপন করা সম্ভব হয়েছে।