বাঙালি পারে না এমন কিছু নেই! ৮ বছরে অ্যাপ বানিয়ে ১১ বছরে কম্পিউটার প্রোগ্রামিং বই লিখে তাক লাগালো বাঙালি খুদে

রবীন্দ্রনাথ থেকে শুরু করে অমর্ত্য সেন, প্রতিপদে বাঙালির প্রতিভা আমাদের সকলকে মুগ্ধ করেছে, সমৃদ্ধ করেছে সারা বিশ্বকে। ছোট হোক অথবা বড়, বাঙালি মানেই প্রতিভার ভান্ডার। এবার এক ১১ বছরের ছোট্ট ছেলের কান্ড দেখে অবাক হয়ে গেছে গোটা বিশ্ব। মাত্র ৮ বছর বয়সে এই ছোট্ট ছেলেটি অ্যাপ তৈরি করে এবং ১১ বছর বয়সে কম্পিউটার প্রোগ্রামিং- এর উপর বিশদে বই লিখে ফেলেছে আলিপুরদুয়ারের এই বিস্ময় বালক।

আলিপুরদুয়ারের বাসিন্দা অনুব্রত সরকার মাত্র একদিনের মধ্যে কোডিং এর উপর ১০৬ পাতার একটি বই লিখে ফেলে সকলকে চমকে দিয়েছেন। আরো একবার বাংলার মুখ সারা বিশ্বের দরবারে উজ্জ্বল করেছে এই ছোট্ট ছেলেটি। একদিনের মধ্যে যে বইটি সে লিখেছে তার নাম “কোড ওয়ার্ল্ড”। ইতিমধ্যে সারা বিশ্বে এই বইটি সাড়া ফেলে দিয়েছে রীতিমতো। বইটি অ্যামাজনের পাঠানোর ১৬ ঘণ্টার মধ্যে স্বীকৃতি পায়। ইতিমধ্যেই এই বইটি অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড এবং মার্কিন মুলুক সহ বিশ্বের ১২ টি দেশে বিক্রি হয়েছে। অনুব্রতর বইটি বিশ্বের বইয়ের বাজারে দারুণ সাড়া ফেলে দিয়েছে।

অনুব্রত বাবা এবং মা দুজনে শিক্ষক। অনুব্রত বাবা কৌশিক সরকার আলিপুরদুয়ারের জিতপুর হাইস্কুলের শিক্ষক অন্যদিকে মা শান্তা ভট্টাচার্য নিউটাউন বালিকা শিক্ষা মন্দির স্কুলের শিক্ষিকা। ছেলের এই সাফল্য প্রসঙ্গে কৌশিক বাবু বলেন, “ছোটবেলা থেকেই অংক এবং কম্পিউটারের প্রতি ভীষণভাবে আগ্রহ অনুব্রতর। আট বছর বয়সে ছেলে যখন প্রথম অ্যাপ তৈরি করেছিল, তা দেখেই আমরা অবাক হয়ে যাই। এরপর একে একে আরো ৬ টি অ্যাপ বানিয়ে ফেলেছে সে”।

অন্যদিকে আরো জানা গেছে, মাত্র ৫ বছর বয়সে কম্পিউটারে হাতে খড়ি করেছে সে। তৃতীয় শ্রেণি থেকেই সে রিজনিং কোডিং ডিকোডিং চর্চা করে। অনুব্রতর লেখা বইতে প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ, জাভা স্ক্রিপ্ট, ফায়ারবেসের মতো জটিল বিষয় লেখা রয়েছে। গত ১০ জুন গুগল কর্তা সুন্দর পিচাইকে জন্মদিনের উপহার হিসাবে এই ছোট্ট ছেলেটি নিজের লেখা বই তুলে দেয় তাঁর হাতে।