খেলাধুলাদেশনতুন খবরবিশেষ

যে ক’টি কারণে এখন উচিত হয়নি মহেন্দ্র সিং ধোনির অবসর নেওয়া…

15 ই আগস্ট স্বাধীনতা দিবসের দিনটিকে বেছে নিলেন ভারতের প্রাক্তন অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি অবসর নেওয়ার জন্য। এদিন তিনি তার ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্ট থেকে 4 মিনিট 7 সেকেন্ডের একটি ভিডিও পোস্ট করে লেখেন যে, তাকে ওই 7.29 মিনিট থেকে যেন অবসরপ্রাপ্ত ক্রিকেটার হিসেবে মনে করা হোক। কিন্তু মাহির অবসর নেওয়ার পর প্রশ্ন উঠছে টিম ইন্ডিয়ার কী হবে? অনেকেই মনে করছেন এই সময়ে মাহির অবসর নেওয়া উচিত ছিল না। আসুন আমরা এবারে কতগুলি কারণ জানবো যেখানে মহেন্দ্র সিং ধোনির কোন কোন কারণে এই সময়ে অবসর নেওয়া উচিত ছিল না।

1. এমএস ধোনির মতন ফিনিশার ভারতীয় দলের কাছে – দুর্দান্ত উইকেটকিপিং করা ছাড়াও তিনি একজন দক্ষ ফিনিশার ছিলেন। একদম নিচের দিকে ব্যাট করতে এসে দ্রুতগতিতে রান করে দলকে জিতিয়ে দেওয়ার ক্ষমতা রাখতেন তিনি। এর প্রমাণ আমরা পেয়েছি বহুবার বিশেষ করে 2011 বিশ্বকাপে তার অনবদ্য 91 রানের ইনিংস হয়তো এখনো পর্যন্ত কেউ ভুলতে পারেনি। কিন্তু মাহির অবসর নেওয়ার পর টিম ইন্ডিয়া বেস্ট ফিনিশার এর অভাব বোধ করবে। যদিও বর্তমানে হার্দিক পান্ডিয়া, মনিশ পান্ডে, কে এল রাহুল এর মত ব্যাটসম্যান রয়েছে ফিনিশার হিসেবে কিন্তু এই সমস্ত ব্যাটসম্যানরা এখনো পর্যন্ত সেই ভাবে ভরসা হাসিল করতে পারেনি যতটা মাহি পেরেছে।

2. এমএস ধোনির পরিবর্তে বিকল্প উইকেটকিপার হিসেবে কাউকে খুঁজে পাইনি টিম ইন্ডিয়া – মহেন্দ্র সিং ধোনি কতটা দক্ষতার তার সঙ্গে উইকেটকিপিং করেন তা আমরা এর আগে বহুবার দেখেছি। অত্যন্ত দ্রুত গতির সঙ্গে স্ট্যাম্প আউট করে দেন তিনি। উইকেটের পেছনে থেকে ফিল্ডিং সাজানো, বোলারদের কোন জায়গায় বল করবে তা বলে দেওয়া সমস্ত কিছুই করতেন তিনি। তার অবসরের পর ইন্ডিয়া টিম অনেকটাই অসুবিধার মুখে পড়বে খেলার মাঠে।

3. বোলারদের সমস্যা কিছুটা হলেও বাড়বে – আমরা খেলার মাঠে দেখেছিলাম উইকেট এর পেছন থেকে বোলারদের ডাইরেকশন দিতে। ব্যাটসম্যানদের মুভমেন্ট স্পিড বা কেমন শট খেলতে চান তা দেখেই বুঝে যেতেন তিনি। সেই অনুসারে তিনি বোলারদের বলতেন কোন জায়গায় বল ফেলতে হবে এবং কোনখানে ফিল্ডিং রাখতে হবে। ফলে বোলারদের ক্ষেত্রে ব্যাটসম্যানদের আউট করা অনেকটাই সহজ হয়ে যেত। তবে মাহির অবসর নেওয়ার পর মাহির কাজগুলি করার মতো উইকেটকিপার এখনো পর্যন্ত তৈরি হয়নি ইন্ডিয়া ক্রিকেট টিমে।

4. বর্তমানে ইন্ডিয়া টিমে ধোনির মতো অভিজ্ঞ ক্রিকেটারের দরকার ছিল – খেলার মাঠে অভিজ্ঞতা থাকা বিশেষ প্রয়োজন। অনেক সময় এই অভিজ্ঞতায় অনেক কঠিন পরিস্থিতি থেকে দলকে জিতিয়ে আনতে পারে। আর মাহির কাছে সেই অভিজ্ঞতা ছিল। আর এই অভিজ্ঞতা এবং দক্ষতার সঙ্গে তিনটি আইসিসি টুর্নামেন্ট জিতেছেন তিনি। বর্তমানে বিরাট কোহলি অধিনায়কত্ব করলেও এমএস ধোনি মাঠে উপস্থিত থাকলে তার পক্ষে অধিনায়কত্ব করা অনেকটাই সহজ হয়ে উঠতো। ফলে খেলার মাঠে বিরাট কোহলিও মাহির অনুপস্থিতি অনুভব করবে।

5. আগামী যে 20 বিশ্বকাপ রয়েছে তাতে এক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারতেন মাহি – আমার সবাই জানি করোনা মহামারীর কারণে এ বছরে যে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ হওয়ার কথা ছিল তা স্থগিত রাখা হয়েছে আইসিসির তরফ থেকে। এই টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ 2021 সালে ভারতের মাটিতে অনুষ্ঠিত হবে এবং তার পরের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ 2022 সালে অস্ট্রেলিয়াতে অনুষ্ঠিত হবে। অর্থাৎ সামনে রয়েছে দুটি বড় বড় ইভেন্ট। আর ঠিক এই সময়ে মহেন্দ্র সিং ধোনি অবসর ঘোষণা করলেন। এই পরিস্থিতে টিম ইন্ডিয়ার কাছে না আছে দক্ষ উইকেটকিপার না আছে ভরসাযোগ্য ফিনিশার।কিন্তু তিনি যখন অবসর ঘোষণা করে দিয়েছেন তখন আর ইন্ডিয়ার জার্সি পরে মাঠে নামবেন না তিনি। ফলে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে একজন অভিজ্ঞ ক্রিকেটারের অভাব বোধ করবে টিম ইন্ডিয়া।

Related Articles

Back to top button