টেক নিউসনতুন খবরবিশেষলাইফ স্টাইল

সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে এবার 92 হাজার কোটি টাকা এয়ারটেল, ভোডাফোনদের কাছ থেকে পাবে কেন্দ্র

কেন্দ্রীয় সরকারের সাথে বেসরকারি সংস্থাদের পাওনাগণ্ডা নিয়ে বরাবরই বহুকাল ধরে ঝামেলা চলে আসছে। তাতে কেন্দ্রে যে সরকারই ক্ষমতায় থাকুক না কেন এই ঝেমেলা বরাবরই চলতে থাকে। সাধারণত এটা বললে ভুল হবে না যে এই সংস্থাগুলি দেশের টেলিকম সংস্থার আইনের তোয়াক্কা না করে ব্যবসা চালিয়ে যাই। তবে এসব ঘটনাকে নিয়ে তিক্ত বিরক্ত হয়ে অবশেষে সুপ্রিমকোর্টের কাছে দ্বারস্থ হয়েছিল কেন্দ্রীয় সরকার শেষে শীর্ষ আদালতে।

কেন্দ্রের এই আর্জিকে মেনে নিয়ে ভারতী এয়ারটেল, ভোডাফোন, রিলায়েন্স, এমটিএনএল সংস্থাগুলিকে সরকারকে তাদের কাজের লাইসেন্স বাবদ যাবতীয় পাওনা মিটিয়ে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে। এই সব কটি সংস্থা অর্থ মিলিয়ে মোট পরিমাণ দাঁড়িয়েছে 92 হাজার 641 কোটি টাকা। যার ফলে এইসব সংস্থাগুলির এবার গ্রাহকদের ওপর বড়ো কোপ পড়ার আশঙ্কা রয়েছে। এরমধ্যে কেন্দ্রীয় টেলিকম সংস্থার ভারতী এয়ারটেলের কাছে শুধুমাত্র 21 হাজার 682 কোটি টাকা পায়।

আর এই বিষয় নিয়ে এখন টেলিকম সংস্থার দাবি বিশ্বমানের পরিষেবার তাদের কেন্দ্রীয় সরকারকে এই বিপুল পরিমাণ অর্থ জরিমানা দেওয়া খুবই চাপের বিষয় হয়ে দাঁড়াবে তাদের কাছে। তাদের দাবি এরকমই বাজার ভালো নেই তাদের তার ওপরে জরিমানার বোঝা বেশ কষ্ট হয়ে যাবে। সেই সঙ্গে তাদের দাবি এই বিষয় নিয়ে কোনো একটা সমাধান সূত্র সরকারকেই বের করতে হবে। এয়ারটেল এর পর সরকার ভোডাফোনের কাছে লাইসেন্স ফি বাবদ 19 হাজার 823 কোটি টাকা পাবে।

সম্প্রতি বিটিএন এল ও বিএসএনএল কে সংযুক্ত করেছে কেন্দ্রীয় সরকার। আর এই দুই সংযোগ সাধন করার জন্য এই দুই সংস্থার কাছ থেকে 5 হাজার কোটি টাকার বেশি লাইসেন্স ফি বাবদ পাবে। কেন্দ্রীয় সরকার তবে সেক্ষেত্রে সরকার কী করবে এখনও এর কোনো উত্তর পাওয়া যায়নি।এই বিষয় নিয়ে টেলি কর্তা জানান এই বিষয়টি প্রায় কুড়ি বছরের পুরনো আর বহুবার আদালত নির্দেশ দিলেও এই সংস্থাগুলি তাদের বাকি থাকা অর্থ সরকারকে মেটাই না বলে তিনি অভিযোগ করেন।তাই সাধারণত আদালতের বাইরেই কেন্দ্রীয় সরকারের সঙ্গে সমঝোতা করে নেয় এই সংস্থাগুলি। তার কোথায় এইভাবে কেন্দ্রীয় সরকার প্রতিবছর কয়েক হাজার কোটি টাকা ক্ষতি করে থাকে এই সংস্থাগুলির কাছ থেকে।

Related Articles

Back to top button