দেশনতুন খবরবিশেষ

ব্রেকিং খবর – পাকিস্তানকে সম্পূর্ণ PoK খালি করার নির্দেশ দিল ভারত…

ভারত-পাকিস্তানের সম্পর্ক আদায়-কাঁচকলায় তা আমরা সবাই জানি। এবারও ফের ভারতের সঙ্গে বচসায় জড়িয়ে পড়ল পাকিস্তান। কার কতটা সীমানা সেই নিয়ে বচসা সৃষ্টি হয়েছে। আর এই নিয়ে তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছে ভারতের বিদেশমন্ত্রক। সম্প্রতি কয়েক দিন আগে পাকিস্তানের সুপ্রিম কোর্ট পাক অধিকৃত কাশ্মীরের গিলগিট-বালতিস্তানের ভোট নিয়ে প্রশ্ন তুলতে ভারত সেই পরিপ্রেক্ষিতে কড়া জবাব দিয়েছে। ভারত স্পষ্টভাবে জানিয়ে দিয়েছে যে, গোটা জম্মু-কাশ্মীর, লাদাখ ও গিলগিট- বালতিস্তান ভারতের অংশ।

পাকিস্তানের সুপ্রিম কোর্টের অর্ডারের পর বিদেশ মন্ত্রক স্পষ্টভাবে জানিয়ে দিয়েছে, পাকিস্তানের এক্ষুনি সমস্ত অবৈধভাবে নেওয়া জায়গা ছেড়ে দেওয়া উচিত এবং সমস্ত জায়গা যত তাড়াতাড়ি সম্ভব খালি করে দেওয়া। অপরদিকে আবার ভারতের তরফ থেকে পাকিস্তানের কূটনীতিকের থেকে রাজনৈতিক বিচার চাওয়া হয়েছে। শুধু তাই নয় পাকিস্তানের এই চেষ্টাকে ভারত কটাক্ষ করেছে।এমন কী পাক অধিকৃত কাশ্মীরের সীমানাতে জোর করে পরিবর্তন করেছে পাকিস্তান। যত তাড়াতাড়ি সম্ভব তাদের অধিকৃত জায়গা খালি করার জন্য বলে দেওয়া হয়েছে।

পাকিস্তান কে উদ্দেশ্য করে বিদেশমন্ত্রক সাফ জানিয়ে দিয়েছে, “জম্মু ও কাশ্মীর, লাদাখ ও গিলগিট-বালতিস্তান সম্পূর্ণরূপে ভারতের অংশ।” এছাড়াও বিদেশমন্ত্রকের তরফ থেকে আরও জানানো হয়েছে, ” পাক সরকার এবং তার বিচার ব্যবস্থা জোর করে ওই জায়গাতে অধিকার বসিয়েছে। ভারত সম্পূর্ণরূপে এই কাজ প্রত্যাহার করছে।ভারতের জম্মু ও কাশ্মীরেও পাকিস্তান জোর করে অধিকার ফলানোর চেষ্টা করছে যা আমরা কোনদিনই হতে দেবো না।”

1998 সালের সংসদে এই সম্পর্কে স্পষ্ট হয়ে গেছে। জম্মু-কাশ্মীরে আর্টিকেল 370 এবং 35A নিষ্ক্রিয় করনের অনেক আগে থেকেই পাক অধিকৃত কাশ্মীরে একই কাজ করে চলেছিল পাকিস্তান। এরপর একটি বিশেষ অর্ডারের মাধ্যমে পাক অধিকৃত কাশ্মীরের গিলগিট-বালতিস্তানের অধিকার খর্ব করা হয়েছিল পাকিস্তানের দিক থেকে। এই ঘটনাটি ঘটেছিল 2018 সালের 21 মে তে। তখন পাক প্রধানমন্ত্রী হিসেবে ছিলেন শাহিদ খাকান আব্বাসি । তখনো এর তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছিল ভারত। সেই সময় পাকিস্তান পাত্তা দিতে চাইনি এই বিষয়টি নিয়ে।


এখন আর্টিকেল 370 এবং 35A সম্পর্কে আন্তর্জাতিক মহলের সমর্থন চাইছে পাকিস্তান। কারণ পাকিস্তান জানে এ ছাড়া তাদের আর কোনো রাস্তা নেই। কিন্তু বর্তমানে ইমরান খানের সরকার এ নিয়ে এখন অস্বস্তিতে রয়েছে। কারন 2018 সালের গিলগিট-বালতিস্তান এর অর্ডার পাকিস্তানকে এখনো পর্যন্ত ঝুলিয়ে রেখেছে।

Related Articles

Back to top button